শাহজাহান এখনও অধরা, সন্দেশখালির আগুন নেভাবে কে ? - আজ খবর । দেখছি যা লিখছি তাই । ডিজিটাল মিডিয়ায় অন্যতম শক্তিশালী সংবাদ মাধ্যম

Sonar Tori


শাহজাহান এখনও অধরা, সন্দেশখালির আগুন নেভাবে কে ?

Share This

 

শাহজাহান এখনও  অধরা, সন্দেশখালির আগুন নেভাবে কে ?

আজ খবর (বাংলা), সন্দেশখালি, উত্তর ২৪ পরগনা, ১০/০২/২০২৪ : সন্দেশখালিতে উত্তেজনা প্রতিদিনই বেড়ে চলেছে একটু একটু করে। প্রতিবাদ, বিক্ষোভ, ঘেরাও, অগ্নি সংযোগের ঘটনা ঘটেই চলেছে। পরিস্থিতি সামাল দিতে তৎপর রয়েছে পুলিশের বিশাল বাহিনী।

সন্দেশখালিতে তল্লাশি অভিযানে গিয়ে স্থানীয় কিছু গ্রামবাসীদের কাছে হেনস্থা হয়ে শূন্য হাতেই ফিরে আসতে হয়েছিল ইডিকে। ইডি  আধিকারিকরা গিয়েছিলেন সন্দেশখালির দোর্দণ্ডপ্রতাপ নেতা শেখ শাহজাহানের বাড়িতে তল্লাশি চালাতে। কিন্তু শেখ শাজাহানের বাড়িতে তাঁরা তল্লাশি অভিযান চালাতে পারেন নি। কোনোরকমে শেষমেশ তাঁদের ফিরে  আসতে হয়েছিল। সেই থেকে তৃণমূল নেতা শেখ শাহজাহান ও আরও কয়েকজন অধরাই থেকে যায়। তাদেরকে আর খুঁজে পাওয়া যায় নি। স্থানীয় ন্যাজাট  থানার পুলিশও নাকি তাদের খুঁজে পাচ্ছে না। ইতিমধ্যে দু'বার ইডির তলব এড়িয়ে গিয়েছে শেখ শাহজাহান। তার বাড়ি সিল করে দিয়ে এসেছে ইডি।  তার খোঁজে এলাকায় বসেছে সিসিটিভি ক্যামেরা।

পুড়ে যাওয়া পোল্ট্রি ফার্ম 

এদিকে সন্দেশখালিতে শেখ শাজাহানের বিরুদ্ধে তৈরি হয়ে গিয়েছে ব্যাপক জনরোষ। শাহজাহানের দীর্ঘদিনের অত্যাচারের প্রতিবাদে সেখানকার সাধারণ মানুষ ক্ষোভে ফেটে পড়েছে।  এখানে তৃণমূলেরই এক শ্রেণীর বিরুদ্ধে অপর এক শ্রেণী ব্যাপক বিক্ষোভ দেখিয়ে চলেছে। অর্থাৎ যারা বিক্ষোভ দেখাচ্ছে তারা যেমন তৃণমূলের সমর্থক আবার যাদের বিরুদ্ধে বিক্ষোভ দেখাচ্ছে তারাও তৃণমূল কংগ্রেসেরই নেতা ও সমর্থক। শেখ শাহজাহান ও তার ঘনিষ্ঠদের গ্রেপ্তারির দাবীতে সাধারণ গ্রামবাসীরা গত কয়েকদিন ধরেই ব্যাপক বিক্ষোভ দেখাচ্ছে।

সন্দেশখালিতে মহিলাদের লাঠি, ঝাঁটা, কাটারি নিয়ে তুমুল বিক্ষোভ করতে দেখা গিয়েছে। তাঁদের বক্তব্য অবিলম্বে শেখ শাহজাহান ও তার ঘনিষ্ঠ উত্তম ও শিবুকে গ্রেপ্তার করতে হবে। এই দুইজনই নাকি সাধারণ মানুষের ওপর যথেচ্ছ অত্যাচার চালিয়ে গিয়েছে। মাত্রাতিরিক্ত সেই অত্যাচারের ফল হিসেবে গত কয়েকদিন ধরেই নেতাবিহীন প্রতিবাদ আন্দোলনে সোচ্চার হয়ে উঠেছেন সন্দেশখালির মহিলারা। রোষের আগুনে পুড়ে ছারখার হয়ে যাচ্ছে অনেক কিছুই। সন্দেশখালিতে শিবুর পোল্ট্রি ফার্মে আগুন লাগিয়ে দেওয়া হয়। তার বাড়িতেও ভাংচুর চালানো হয়েছে বলে জানা যাচ্ছে। প্রতিবাদ জানিয়ে বিক্ষোভে সামিল হয়েছেন স্থানীয় দোকানদারেরাও। এলাকার দোকানপাট বন্ধ রয়েছে। বন্ধ রয়েছে গাড়ির চলাচলও।  সমস্যায় পড়েছেন মাধ্যমিক পরীক্ষার্থীরা। 

জনরোষ সামলাতে পুলিশের বিশাল একটি বাহিনী সন্দেশখালিতে মোতায়েন রয়েছে। পুলিশের কর্তারা বিক্ষোভকারীদের সাথে দফায় দফায় কথা বলছেন। তাঁদেরকে বোঝাবার চেষ্টা করছেন। জেলিয়াখালীতে শিবুর পোল্ট্রি ফার্ম ও বাড়িতে ভাঙচুর ও আগুন লাগানোর ঘটনায় এখনও  পর্যন্ত আটজন প্রতিবাদী গ্রামবাসীকে আটক করেছে পুলিশ। প্রতিবাদে ঘেরাও করা হয়েছিল থানা, অবশ্য পুলিশের আশ্বাস পেয়ে সেই থানা ঘেরাও অভিযান তুলে নেয় বিক্ষোভকারীরা। পুলিশ জানিয়েছে, আগামী দুই এক দিনের মধ্যেই পরিস্থিতি অনেকটাই স্বাভাবিক হয়ে যাবে। কিন্তু শেখ শাজাহান এবং তার সাঙ্গোপাঙ্গদেরকে গ্রেপ্তার করা যাবে কিনা তা অবশ্য জানাতে পারে নি পুলিশ বা প্রশাসনের কেউই। 

আরও পড়ুন : কাশ্মীর উপত্যকায় সশব্দে নেমে এল তুষারধ্বস 


Loading...

Amazon

https://www.amazon.in/Redmi-8A-Dual-Blue-Storage/dp/B07WPVLKPW/ref=sr_1_1?crid=23HR3ULVWSF0N&dchild=1&keywords=mobile+under+10000&qid=1597050765&sprefix=mobile%2Caps%2C895&sr=8-1

Pages