তৃণমূল নেতা অজিত মাইতিকে বেধড়ক মার গ্রামবাসীদের - আজ খবর । দেখছি যা লিখছি তাই । ডিজিটাল মিডিয়ায় অন্যতম শক্তিশালী সংবাদ মাধ্যম

Sonar Tori


তৃণমূল নেতা অজিত মাইতিকে বেধড়ক মার গ্রামবাসীদের

Share This
তৃণমূল নেতা অজিত মাইতিকে বেধড়ক মার গ্রামবাসীদের


আজ খবর (বাংলা), সন্দেশখালি, উত্তর ২৪ পরগণা, ২৩/০২/২০২৪ :  ফের নতুন করে অশান্তির আগুন ছড়িয়ে পড়ল উত্তর ২৪ পরগণার সন্দেশখালিতে। সন্দেশখালিতে আজ ফের ডিআইজির আগমন, তৃণমূল নেতাকে মারধর, বিজেপি মহিলা নেত্রীদের আটক করা সব মিলিয়ে ফের হুলুস্থূল সন্দেশখালিতে।

আজ সকালে ফের সন্দেশখালিতে গিয়ে পৌঁছান রাজ্য পুলিশের ডিআইজি রাজীব কুমার। এদিন তিনি প্রতিবাদীদের সংযত হওয়ার আবেদন করেন। তিনি বলেন, "আইন যেই হাতে নেবে তাকে গ্রেপ্তার করা হবে।" এদিন তিনি সংবাদ মাধ্যমের একাংশের ভূমিকাকে সমালোচনা করেন। কিন্তু এত কিছুর পরেও, পুলিশের বিশাল বাহিনী মোতায়েন থাকা সত্ত্বেও সন্দেশখালিতে অশান্তি আবারও ছড়িয়ে পড়ল। এদিন তৃণমূল কংগ্রেসের ব্লক সভাপতি অজিত মাইতির ওপর চড়াও হয় প্রতিবাদী গ্রামবাসীরা। তাকে বেধড়ক মারধর করা হয় পুলিশের সামনেই। এরপরেই মৃদু লাঠিচার্জ করতে দেখা যায় পুলিশকে। গ্রামের পুরুষদের আটক করে নিয়ে যেতে দেখা যায় পুলিশকে। গ্রামের মধ্যেই মহিলারা রাস্তায় শুয়ে পড়ে  প্রতিবাদ জানাতে থাকেন।

এদিন বিজেপির মহিলা মোর্চা সন্দেশখালিতে আসতে চাইছিল। তাদের কলকাতার সায়েন্স সিটি দিয়ে যাওয়ার কথা থাকলেও তাঁরা রুট বদলে ভোজেরহাট, মালঞ্চ হয়ে সন্দেশখালির দিকে এগিয়ে যেতে থাকেন। খবর পেয়ে পুলিশ গিয়ে তাদের পথ আটকায়। তাঁদের জানানো হয় সন্দেশখালির বিভিন্ন জায়গায় ১৪৪ ধারা জারি করা রয়েছে , তাই তাঁদেরকে যেতে দেওয়া যাবে না। এই সময় বিজেপি নেত্রী লকেট চ্যাটার্জি, আইনজীবী প্রিয়াঙ্কা তীব্রেওয়ালরা পুলিশের সাথে তীব্র বাদানুবাদে জড়িয়ে পড়েন। লকেটকে আটক করে কলকাতার লালবাজারে নিয়ে আসা হয়।

তবে সন্দেশখালিতে এত ঘটনা ঘটে গেলেও আজ ৫০ দিন কেটে গেলেও শেখ শাজাহান কিন্তু অধরাই থেকে গেলেন। তাঁকে পশ্চিমবঙ্গের পুলিশ এখনও  পর্যন্ত ধরতে পারল না। 

Loading...

Amazon

https://www.amazon.in/Redmi-8A-Dual-Blue-Storage/dp/B07WPVLKPW/ref=sr_1_1?crid=23HR3ULVWSF0N&dchild=1&keywords=mobile+under+10000&qid=1597050765&sprefix=mobile%2Caps%2C895&sr=8-1

Pages