মণিপুরে প্রায় আড়াই হাজার কোটি টাকার প্রকল্পের উদ্বোধন করলেন অমিত শাহ - আজ খবর । দেখছি যা লিখছি তাই । ডিজিটাল মিডিয়ায় অন্যতম শক্তিশালী সংবাদ মাধ্যম

Sonar Tori


মণিপুরে প্রায় আড়াই হাজার কোটি টাকার প্রকল্পের উদ্বোধন করলেন অমিত শাহ

Share This

মণিপুরে প্রায় আড়াই হাজার কোটি টাকার প্রকল্পের উদ্বোধন করলেন অমিত শাহ


আজ খবর (বাংলা), নতুন দিল্লী ও ইম্ফল, ভারত, 07/01/2022 : কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র  শ্রী অমিত শাহ আজ ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে মণিপুরে ২ হাজার ৪৫০ কোটি টাকার ২৯টি উন্নয়নমূলক প্রকল্পের সূচনা ও শিলান্যাস করেছেন। অনুষ্ঠানে রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী শ্রী এন বীরেন সিং উপস্থিত ছিলেন। 

 
এই উপলক্ষে শ্রী শাহ বলেন, আমাদের স্বাধীনতা সংগ্রামে মণিপুর ছিল স্বাধীনতার প্রবেশদ্বার। এখানেই নেতাজী সুভাষ চন্দ্র বসু ইন্ডিয়ান ন্যাশনাল আর্মির পতাকা প্রথমবার উত্তোলন করেছিলেন। সেদিক থেকে মণিপুর ছিল অত্যন্ত ভাগ্যবান। এবছর দেশের স্বাধীনতার ৭৫তম বার্ষিকী উদযাপিত হচ্ছে। সেই সঙ্গে সারা দেশে আজাদি কা অমৃত মহোৎসবের আয়োজন করা হয়েছে। মণিপুরও তার প্রতিষ্ঠার ৫০তম বার্ষিকী পূরণ করতে চলেছে। তাই স্বাধীনতার ৭৫তম বার্ষিকী এবং মণিপুরের ৫০তম বার্ষিকী সকল মণিপুরবাসীর কাছে এক নতুন উদ্যমে নতুন সংকল্প গ্রহণের সুযোগ এনে দিয়েছে। 
 
শ্রী শাহ বলেন, মুখ্যমন্ত্রী শ্রী এন বীরেন সিং-এর নেতৃত্বে রাজ্য সরকার গত ৫ বছর ধরে মণিপুরের প্রতিটি প্রান্তে নিষ্ঠার সঙ্গে সার্বিক উন্নয়নে নিরলস চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে। মুখ্যমন্ত্রীর নেতৃত্বে রাজ্যটি সব ক্ষেত্রেই সাফল্যের নতুন নজির গড়েছে। মণিপুরের ইতিহাস যখন লেখা হবে, তখন এই পাঁচ বছরের সাফল্য স্বর্ণযুগ হিসেবে জায়গা করে নেবে। রাজ্যে পাঁচ বছরে এই উন্নয়নের মাধ্যমে হিংসা অনেকাংশে নিয়ন্ত্রণে নিয়ে আসা সম্ভব হয়েছে। শ্রী শাহ বলেন, স্থিতিশীলতা ও শান্তি বজায় না থাকলে উন্নয়ন অসম্ভব। কিন্তু মুখ্যমন্ত্রী শ্রী বীরেন সিং-এর নেতৃত্বাধীন সরকার মণিপুরে সার্বিক উন্নয়নের পাশাপাশি স্থিতিশীলতা ও শান্তির নতুন পথ খুলে দিয়েছে। এর ফলে রাজ্যটি চিরাচরিত বিক্ষোভ, হিংসা, দুর্নীতি, ধর্মঘট, মাদকের চোরাচালানের মত পরিস্থিতি থেকে বেরিয়ে আসতে সক্ষম হয়েছে। 
 
শ্রী শাহ জানান, প্রধানমন্ত্রী শ্রী নরেন্দ্র মোদী গতকালই এরাজ্যে ৩ হাজার কোটি টাকার বেশি ২১ প্রকল্পের উদ্বোধন ও শিলান্যাস করেছেন। তিনি পাঁচটি জাতীয় মহাসড়ক প্রকল্পেরও শিলান্যাস করেন। আজ যে ১৫টি প্রকল্পের উদ্বোধন বা শিলান্যাস হয়েছে তা রূপায়নে খরচ হয়েছে ২ হাজার ১৯৪ কোটি টাকা। গত দু-দিনে রাজ্যের সার্বিক উন্নয়নে প্রায় ৫ হাজার ৫০০ কোটি টাকার প্রকল্পের উদ্বোধন বা শিলান্যাস হয়েছে। শ্রী শাহ বলেন, বিগত সরকারগুলির আমলে রাজ্যের মানুষ এটা কখনও দেখেছেন যে, দু-দিনে ৫ হাজার ৫০০ কোটি টাকার প্রকল্প উদ্বোধন বা শিলান্যাস হয়েছে। 
 
জৈব পদ্ধতিতে ফসল উৎপাদনের গুরুত্বের কথা উল্লেখ করে শ্রী শাহ বলেন, ভবিষ্যতে এধরণের কৃষিজ ফসলের চাহিদা আরও বাড়বে। উত্তর-পূর্বাঞ্চলের রাজ্যগুলিতে কেন্দ্রীয় কৃষি ও কৃষক কল্যাণ মন্ত্রক ইতিমধ্যেই জৈব কৃষিকাজের প্রসারে বিশেষ অভিযান গ্রহণ করেছে। মণিপুরের কৃষকরা যে ভাবে জৈব কৃষিকাজ পদ্ধতি আপন করে নিয়েছেন, তার জন্য শ্রী শাহ সমগ্র কৃষক সমাজের প্রশংসা করেন। শ্রী শাহ জানান, আজ গবাদি পশুপালন ক্ষেত্রের সঙ্গে যুক্ত ১৬ কোটি টাকার পাঁচটি প্রকল্পের সূচনা হয়েছে। এছাড়াও ২১ কোটি টাকা খরচে চারটি সেতু ও সড়ক নির্মাণ করা হচ্ছে। পানীয় জল সরবরাহের জন্য ৩৬ কোটি টাকার চারটি প্রকল্পের কাজ শেষ হয়েছে। এর ফলে, ৩১ হাজার রাজ্যবাসী লাভবান হবেন। শ্রী শাহ আজ মণিপুর বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে আন্তর্জাতিক ছাত্রাবাস ভবন জাতির উদ্দেশে উৎসর্গ করেন। একই সঙ্গে তিনি একটি পুলিশ স্মারকেরও আবরণ উন্মোচন করেন। 
 
রাজ্যে ক্ষমতাসীন পূর্বতন সরকারগুলি কেবল সংকীর্ণ রাজনৈতিক স্বার্থ চরিতার্থ করার কাজেই ব্যস্ত ছিল। কিন্তু বর্তমান মোদীর নেতৃত্বাধীন কেন্দ্রীয় সরকার এবং মুখ্যমন্ত্রী শ্রী বীরেন সিং-এর নেতৃত্বাধীন রাজ্য সরকার একযোগে ডবল ইঞ্জিন সরকারের রূপ নিয়ে উন্নয়নের কাজে যুক্ত রয়েছে। তিনি আরও বলেন, সমগ্র উত্তর-পূর্বাঞ্চলের উন্নয়নে মোদী সরকার এক নতুন দিশার সূচনা করেছে। শ্রী মোদী সমস্ত কেন্দ্রীয় মন্ত্রীদের নির্দেশ দিয়ে বলেছেন, প্রতি ১৫ দিনে যেন একজন মন্ত্রী উত্তর-পূর্বের রাজ্যগুলিতে বিভিন্ন উন্নয়নমূলক কাজকর্মের অগ্রগতি খতিয়ে দেখতে সফর করেন। সেই অনুসারে উত্তর-পূর্বের রাজ্যগুলিতে গত সাড়ে সাত বছরে মন্ত্রী পর্যায়ে ১ হাজার ৫০০টি সফর হয়েছে। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী জানান, উত্তর-পূর্বের রাজ্যগুলিতে বহু সমস্যার সমাধান করা হয়েছে। বাংলাদেশের সঙ্গে সীমান্ত সম্পর্কিত অমীমাংসিত বিষয় চুক্তির মাধ্যমে নিষ্পত্তি হয়েছে। ব্রু-রিয়াং চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়েছে। বোড়ো চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়েছে। এমনকি, আটটি বিদ্রোহী গোষ্ঠীর সঙ্গে সমঝোতার মাধ্যমে সহমতে পৌঁছোনো গেছে। শুধু তাই নয়, প্রায় ৩ হাজার জঙ্গি অস্ত্রশস্ত্র সমর্পন করে সমাজের মূল স্রোতে যুক্ত হয়েছেন এবং যুব সম্প্রদায় আজ দেশের উন্নয়নে হাত মিলিয়েছে।
 
উত্তর-পূর্বের রাজ্যগুলিতে আমরা অস্থিরতা, বিদ্রোহ ও অসমতার পরিবর্তে উদ্ভাবন, পরিকাঠামো ও সংযুক্তিকরণে গুরুত্ব দিয়েছি। এর ফলে, মণিপুরে অবরোধ, ধর্মঘটের প্রায় অবসান ঘটেছে এবং রাজ্যটি উন্নয়নের পথে এগিয়ে চলেছে। তিনি রাজ্যবাসীকে আশ্বস্ত করে বলেন, সুযোগ পেলে মণিপুরকে মাদক চোরাচালান মুক্ত করা হবে। মণিপুরের সংস্কৃতির প্রসারে আমরা রাণী মাতা ও সমস্ত আদিবাসী নেতা-নেত্রীকে নিয়ে একটি সংগ্রহশালা গড়ে তুলছি। সারা দেশে এধরণের ৩১টি সংগ্রহালয় গড়ে তোলা হবে। এরমধ্যে একটি মণিপুরে গড়ে উঠবে। কোভিড-১৯ পরিস্থিতি মোকাবিলার জন্য রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী ও সরকারের ভূমিকার প্রশংসা করে শ্রী শাহ জানান, রাজ্যের ১৬টি জেলাতেই অক্সিজেন প্ল্যান্ট গড়ে তোলা হয়েছে। 
Loading...

Amazon

https://www.amazon.in/Redmi-8A-Dual-Blue-Storage/dp/B07WPVLKPW/ref=sr_1_1?crid=23HR3ULVWSF0N&dchild=1&keywords=mobile+under+10000&qid=1597050765&sprefix=mobile%2Caps%2C895&sr=8-1

Pages