সাংবাদিক বৈঠকে বিস্ফোরক জয়প্রকাশ ও রীতেশ - আজ খবর । দেখছি যা লিখছি তাই । ডিজিটাল মিডিয়ায় অন্যতম শক্তিশালী সংবাদ মাধ্যম

Sonar Tori


সাংবাদিক বৈঠকে বিস্ফোরক জয়প্রকাশ ও রীতেশ

Share This

সাংবাদিক বৈঠকে বিস্ফোরক জয়প্রকাশ ও রীতেশ
জয়প্রকাশ মজুমদার (ফাইল চিত্র)


আজ খবর (বাংলা), কলকাতা, পশ্চিমবঙ্গ, 25/01/2022 :  বিজেপি শোকজ এবং কিছুদিনের জন্যে সাসপেন্ড করেছে জয়প্রকাশ মজুমদার ও রীতেশ তেওয়ারিকে। আজ তাঁরা কলকাতা প্রেস ক্লাবে সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে দলের বিরুদ্ধেই রীতিমত ক্ষোভে ফেটে পড়লেন। 

আজ আগাগোড়াই বিস্ফোরক ছিলেন জয়প্রকাশ মজুমদার। আজ তিনি সাংবাদিকদের যে বল্তব্য পেশ করেছেন, তাতে বিজেপির রাজনৈতিক ইমারতের পরিস্থিতি যে বেশ নড়বড়ে অবস্থা তা স্পষ্ট হয়ে গিয়েছে। বিজেপি পার্টির নিচুতলার কর্মীরা যে ভাল নেই, সংগঠিত নেই, নিরাপদ নেই, সেই কথা বার বার মনে করিয়ে দিলেন জয়প্রকাশ মজুমদার।

জয় প্রকাশবাবু প্রশ্ন তোলেন রাজ্য বিজেপির বর্তমান নেতৃত্বের অভিজ্ঞতা নিয়ে, সদিচ্ছা নিয়ে। তিনি প্রশ্ন তোলেন গত বিধানসভা নির্বাচনে কেন বিজেপি আশা জাগিয়েও জিততে পারল না। ভোটের পরে কেঁ সেসব নিয়ে পর্যালোচনা করা হল না। কেন্দ্র বিজেপি যে পরিকল্পনা করছে তা কাজে করে কেন দেখাতে পারছে না রাজ্য বিজেপি ? আজ সাংবাদিক বৈঠকে তাঁদের শোকজ এবং সাসপেন্ড করার ধরন নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন জয়প্রকাশ মজুমদার এবং রীতেশ তেওয়ারি দুজনেই।

জয়প্রকাশবাবু আজ মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে মেসির সাথে তুলনা করে বলেন, "প্রতিপক্ষ দলে যেখানে মেসির মত (মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়) ফুটবলার রয়েছে, সেখানে বিজেপি যে টিম নামিয়েছে সেইসব ফুটবলাররা মাত্র 2 বা 3 বছর ফুটবল খেলছে। মমতা লড়াকু নেত্রী, তিনি মাঠে, ঘাটে, বাজারে, রাস্তায়, এখানে, ওখানে সর্বত্র লড়াই করেন। তাঁর বিরুদ্ধে শুধু আদালতে কেস করেই জিতে যাওয়া সম্ভব ?" 

জয়প্রকাশবাবু বলেন, "এই প্রশ্ন ছিল আমার, আর এই প্রশ্ন আমি নেতৃত্বের কাছে রেখেছিলাম বলেই আজ আমি বরখাস্ত ? আমি শৃংখলা ভেঙেছি ? আমার শোকজের কথা আমি জানার আগে মিডিয়াকে জানিয়ে দিয়েছেন আপনারাই। তাহলে শৃংখলা ভঙ্গ করল কে ?"

জয়প্রকাশ মজুমদার বলেন, "যেভাবে বিজেপি চলছে সেভাবে চললে শান্তনু ঠাকুরের মত আরও সবাই অন্য সিদ্ধান্ত নিতে চাইবে। তার জন্যে প্রস্তুত থাকা উচিত রাজ্য বিজেপির"। জয়প্রকাশ মজুমদার অভিযোগ করেন, "2014 সাল থেকে আমি বিজেপিতে আছি। ইতিমধ্যে বহু পরিযায়ী নেতা দলে এসেছেন আবার তাঁরা নিজেদের দলে ফিরেও গিয়েছেন। যাদের হাত ধরে রাজ্যে বিজেপি 18টি আসন পেয়েছিল, এখন তাদের সাথেই প্রতারণা চলছে। বঙ্গ বিজেপিকে দুর্বল করার চক্রান্ত চলছে।"

Loading...

Amazon

https://www.amazon.in/Redmi-8A-Dual-Blue-Storage/dp/B07WPVLKPW/ref=sr_1_1?crid=23HR3ULVWSF0N&dchild=1&keywords=mobile+under+10000&qid=1597050765&sprefix=mobile%2Caps%2C895&sr=8-1

Pages