উরিতে 3 জঙ্গী নিকেষ, উদ্ধার প্রচুর অস্ত্র - আজ খবর । দেখছি যা লিখছি তাই । ডিজিটাল মিডিয়ায় অন্যতম শক্তিশালী সংবাদ মাধ্যম

Sonar Tori


উরিতে 3 জঙ্গী নিকেষ, উদ্ধার প্রচুর অস্ত্র

Share This

উরিতে 3 জঙ্গী নিকেষ, উদ্ধার প্রচুর অস্ত্র


আজ খবর (বাংলা), শ্রীনগর, জম্মু ও কাশ্মীর, ভারত, 23/09/2021 : লাইন অফ কন্ট্রোল দিয়ে লুকিয়ে ভারতে ঢুকতে যাওয়া তিন জঙ্গীকে আজ নিকেষ করেছে সেনাবাহিনীর জওয়ানরা। 

অভিযানের পর 15 কর্পস কমান্ডার লে: জেনারেল ডি পি পাণ্ডে সাংবাদিকদের বলেন, "কয়েক সপ্তাহ ধরেই আমরা খবর পাচ্ছিলাম পাক অধিকৃত কাশ্মীরে বিভিন্ন লঞ্চ প্যাডে জঙ্গীরা সক্রিয় হয়ে উঠেছে। ভারতে প্রবেশ করার জন্যে তারা সচেষ্ট হয়ে উঠেছে। সেইমত সেনাবাহিনীও প্রস্তুত ছিল। আজ অনুপ্রবেশ করা তিন জঙ্গীকে এনকাউনটার করে খতম করা হয়েছে।"

15 কর্পস কমাণ্ডার লেফটেন্যান্ট জেনারেল ডি পি পাণ্ডে 

সেনা সুত্রে জানা গিয়েছে নিহত জঙ্গীদের হেফাজত থেকে মোট পাঁচটি এ কে 47 রাইফেল, আটটি পিস্তল এবং 70 টি হ্যান্ড গ্রেনেড উদ্ধার করা হয়েছে। এরা উরি সেক্টরের কাছে হাটলাঙ্গা ফরেস্টের ভিতর দিয়ে ভারতে প্রবেশ করেছিল। 

এই জঙ্গীদের থেকে যে কাগজপত্র পাওয়া গিয়েছে তাতে বোঝা গিয়েছে তাদের মধ্যে অন্তত এক জন পাকিস্তানি। বাকিরা হয়ত সীমান্ত পেরিয়ে জঙ্গী ট্রেনিং নিতে গিয়েছিল। এই জঙ্গীদের পাকিস্তানই যে ট্রেনিং দিচ্ছে, মদত দিচ্ছে, সব রকম সাহায্য করছে তা আজ ফের একবার প্রমান হয়ে গেল। 

গত 18 ই সেপ্টেম্বর উরি সেক্টর হয়েই আরও কিছু জঙ্গী ভারতে অনুপ্রবেশ করতে গিয়ে সেনাবাহিনীর হাতে ধরা পড়ে গিয়েছিল। সেনাবাহিনী চেষ্টা করে ভুল করে জঙ্গীদের কাছে চলে যাওয়া কাশ্মীরিদের স্বাভাবিক জীবনে ফেরত আনার। 18 তারিখে যারা ধরা পড়েছিল, তাদেরকেও স্বাভাবিক জীবনে হয়ত ফেরত আনার চেষ্টা করা হবে।

জঙ্গীদের থেকে উদ্ধার হওয়া অস্ত্র শস্ত্র

লে: জেনারেল ডি পি পাণ্ডে বলেন, "কাশ্মীরে গিলানির (সৈয়দ আলি শাহ) মৃত্যুর পর থেকে কাশ্মীর উপত্যাকার মানুষ শান্তি চাইছে। যেটা কাশ্মীরের কিছু লোকের পছন্দ হচ্ছে না। আমরা কাশ্মীরে যে কোনো মূল্যে শান্তি বজায় রাখব। এখন কাশ্মীর অনেক শান্ত। এখানে পর্যটনও ফিরে এসেছে। দেশের বিভিন্ন সাংসদেরা এখানকার পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ করতে আসছেন। প্রায় 300 জন সাংসদ এসেছেন কাশ্মীরে। এই পরিবেশ পাকিস্তান সহ্য করতে পারছে না। সেনাবাহিনীর জওয়ানরা সদা সতর্ক রয়েছেন। এই বছরে এখনও পর্যন্ত প্রচুর গ্রেনেড উদ্ধার করা হয়েছে। আসলে পাকিস্তানের কিছু স্থানীয় কমান্ডার সীমান্তের ওপারে জঙ্গীদের সব সময় উস্কানি দিয়ে চলেছে। হতাশাগ্রস্ত সেই সব জঙ্গীরা এপারে এসে পিস্তল নিয়ে ঘুরে বেড়াতে শুরু করেছিল। তাদের টার্গেট ছিল নিরীহ মানুষ অথবা নীরস্ত্র পুলিশরা। কিন্তু এ সব এখন আর চলবে না। সেটা ওরা বুঝতে শুরু করেছে। আমরা কোনোভাবেই আর কাশ্মীরের শান্তি বিঘ্নিত হতে দেব না।"

Loading...

Amazon

https://www.amazon.in/Redmi-8A-Dual-Blue-Storage/dp/B07WPVLKPW/ref=sr_1_1?crid=23HR3ULVWSF0N&dchild=1&keywords=mobile+under+10000&qid=1597050765&sprefix=mobile%2Caps%2C895&sr=8-1

Pages