পুলিশ হেফাজতে মৃত্যু পাঁচলার জড়ি শিল্পীর - আজ খবর । দেখছি যা লিখছি তাই । ডিজিটাল মিডিয়ায় অন্যতম শক্তিশালী সংবাদ মাধ্যম

Sonar Tori


পুলিশ হেফাজতে মৃত্যু পাঁচলার জড়ি শিল্পীর

Share This

পুলিশ হেফাজতে মৃত্যু পাঁচলার জড়ি শিল্পীর


আজ খবর (বাংলা), পাঁচলা, হাওড়া, পশ্চিমবঙ্গ, 15/07/2021 : পুলিশ হেফাজতে মৃত্যু পাঁচলার জড়ি শিল্পীর। ব্যাপক বিক্ষোভ গ্রামবাসীদের।

১১, জুলাই রবিবার, পাঁচলা থানার অন্তর্গত রানীহাটি বেলতলা,সংলগ্ন এলাকার মল্লিকবাগান গ্রামের বাসিন্দা পলাশ হাজরাকে চোর সন্দেহে গ্রেফতার করে পাঁচলা থানার পুলিশ। স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে পলাশ পেশায় একজন জরিশিল্পী।ছেলে সারারাত বাড়ী না ফেরায় হন্যে হয়ে খোঁজ করেন পলাশের বাড়ীর আত্মীয়  স্মজনরা। 

১২ ,জুলাই সোমবার তাঁরা জানতে পারেন পাঁচলা থানার পুলিশ আটক করেছে পলাশকে।সূত্রের খবর বাবার ভ্যানরিকশ নিয়ে কয়েকজন বন্ধুর সঙ্গে রবিবার রাত্রে রানীহাটি এলাকায় যাওয়ার সময় পুলিশের নজরে পড়ে তারা। 

বন্ধুরা সকলে পালিয়ে গেলেও পলাশ তার বাবার ভ্যানরিকশা নিয়ে দাঁড়িয়ে থাকে। সেই সময়ই পাঁচলা থানার পুলিশ তাকে আটক করে নিয়ে যায় থানায়। এদিন পলাশের খোঁজ পাওয়ার পরই বাড়ির সদস্যরা পুলিশকে অনুনয় বিনয় করতে থাকেন তাকে ছেড়ে দেওয়ার জন্য। কিন্তু তাতে কোনো ফল হয় নি। 

১৩,জুলাই মঙ্গলবার আবারও পুলিশের কাছে গিয়ে  আবারও পলাশকে ছেড়ে দেওয়ার জন্য অনুরোধ করেন প্রতিবেশীদের একাংশ সহ পলাশের মা - বাবা ও আত্মীয় পরিজনেরা। এদিন রাত ১১ টা পর্যন্ত তারা চেষ্টা করেন পলাশকে বাড়ী ফিরিয়ে নিয়ে যাওয়ার জন্য। সেদিনও বিফলে যায় তাদের সেই চেষ্টা। নিরুপায় হয়েই রাত্রে বাড়ী ফিরে যেতে হয় তাঁদের।

১৪ ,জুলাই বুধবার দুপুর তিনটার সময় হটাৎ ই থানা থেকে পলাশের বাড়িতে খবর দেওয়া হয় যে মঙ্গলবার রাতেই পলাশকে ছেড়ে দেয়া হয়েছে।

কিন্তু সে বাড়িতে না গিয়ে জগৎ বল্লভপুর থানা এলাকার সন্তোষপুরে যায়। এবং সেখানে একটি মৃতদেহ পাওয়া গিয়েছে শনাক্ত করণের জন্য থানায় যোগাযোগ করতে বলা হয় পুলিশের পক্ষ থেকে। এই খবর পাওয়ার পরই তৎক্ষণাৎ পলাশের মা- বাবা ও বাড়ীর সদস্য সহ বেশ কিছু গ্রামবাসী থানায় যান। 

সেখানে গিয়ে পলাশের মৃতদেহ শনাক্ত করার পরই ক্ষোভে ফেটে পড়েন গ্রামবাসীরা। প্রতিবাদে বিকেল পাঁচটা নাগাদ পলাশের প্রতিবেশীরা একত্রিত হয়ে থানার সামনে দীর্ঘক্ষণ বিক্ষোভ প্রদর্শন করেন।

পলাশের মা -বাবা সহ গ্রামবাসীরা পাঁচলা থানায় পুলিশের বিরুদ্ধে লিখিত অভিযোগ জানাতে গেলে তা নিতে অস্বীকার করেন থানার ভারপ্রাপ্ত আধিকারিক শুভাশীষ ব্যানার্জী বলে জানানো হয়েছে বিক্ষোভ কারীদের পক্ষ থেকে।

থানার ভারপ্রাপ্ত আধিকারিক শুভাশীষ বাবু একজন আইনের রক্ষক হয়ে আইনকে অগ্রাহ্য করে আটককারীককে আদালতে হাজির না করে কিভাবে গত তিন ধরে পুলিশী হেফাজতে রেখেছিলেন তা নিয়ে দেখা দিয়েছে নানা জল্পনা। 

এই জল্পনার পাশাপাশি পলাশকে ছেড়ে দেওয়ার কথা তাঁর মা - বাবাকে পুলিশের পক্ষ থেকে কেন আগাম জানানো হয়নি সে বিষয়েও নানা প্রশ্ন বা সন্দেহর দানা বাঁধতে শুরু করেছে গ্রামবাসীদের মনের মধ্যে। ঘটনা সম্পর্কে বিস্তারিত জানার জন্য শুভাশীষ বাবুকে একাধিকবার ফোনে যোগাযোগ করার হলেও তাঁর পক্ষ থেকে কোনও প্রতিক্রিয়া পাওয়া যায় নি।

রিপোর্ট : রাকেশ চক্রবর্তী 

Loading...

Amazon

https://www.amazon.in/Redmi-8A-Dual-Blue-Storage/dp/B07WPVLKPW/ref=sr_1_1?crid=23HR3ULVWSF0N&dchild=1&keywords=mobile+under+10000&qid=1597050765&sprefix=mobile%2Caps%2C895&sr=8-1

Pages