২রা মে তারিখের পর তৃণমূলের সব খেলা বন্ধ হয়ে যাবে : নরেন্দ্র মোদী - আজ খবর । দেখছি যা লিখছি তাই । ডিজিটাল মিডিয়ায় অন্যতম শক্তিশালী সংবাদ মাধ্যম

Sonar Tori


২রা মে তারিখের পর তৃণমূলের সব খেলা বন্ধ হয়ে যাবে : নরেন্দ্র মোদী

Share This


আজ খবর (বাংলা), কলকাতা, পশ্চিমবঙ্গ, ০৭/০৩/২০২১ :  বিশাল জনপ্লাবনে আজ ভেসে গিয়েছিল কলকাতার ব্রিগেড প্যারেড গ্রাউন্ড। লক্ষ লক্ষ মানুষের সমাবেশ দেখে আপ্লুত হয়েছেন  প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী।

নির্বাচনের আগে বিজেপির জনসভায় উপচে পড়া  ভীড়ে ঠাসা  ব্রিগেড কর্মীদের অনেকটাই চাঙ্গা করবে বলে মনে করছেন রাজনৈতিক সচেতন মানুষ। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকে ব্রিগেডের জনসভায় উত্তরীয় প্রিয় স্বাগত জানালেন সদ্য বিজেপিতে যোগ দেওয়া সুপারস্টার মিঠুন চক্রবর্তী। আজ ব্রিগেডের মঞ্চ থেকে নরেন্দ্র মোদী বাংলায় 'আসল' পরিবর্তনের ডাক দিয়ে বলেন, "এতবড় জনসমাগম দেখতে পাওয়া যায় না। হেলিকপ্টার থেকেই দেখতে পাচ্ছিলাম ব্রিগেড প্যারেড গ্রাউন্ড মানুষে মানুষে ছয়লাপ হয়ে গিয়েছে। ময়দানে যত মানুষ আছেন, তার চেয়েও বেশি মানুষ আছেন বাইরের রাস্তায়, আমার মনে  হয় না তাঁরা ময়দানে এসে পৌঁছাতে পারবেন। আমি সকলকেই আন্তরিক ধন্যবাদ জানাচ্ছি। এই জনপ্লাবনই বলে দিচ্ছে এবার বিধানসভা নির্বাচনে কি ফল হতে চলেছে ! এবার বাংলায় পদ্ম ফুটতে চলেছে।"

মোদী বলেন, "আপনারা দিদির ওপর ভরসা করে পরিবর্তন এনেছিলেন এই রাজ্যে। দিদিকে আপনারা বিশ্বাস করেছিলেন। কিন্তু সেই  দিদিই আপনাদের বিশ্বাসকে ভেঙে শেষ করে দিয়েছেন। বাংলা চায় উন্নতি, প্রগতি, শান্তি। এখানকার মানুষ চান সোনার বাংলা, আমি দেখতে পাচ্ছি এবারের নির্বাচনে তৃণমূল, বাম জোট সব একদিকে রয়েছে আর অন্যদিকে বাংলার মানুষ কোমর বেঁধে প্রস্তুত হচ্ছেন, এখানে আসল পরিবর্তন আনবেন বলে। আসল পরিবর্তন কি ? আসল পরিবর্তন হল সেই বাংলা, যেখানে যুবরা শিক্ষা পাবেন, তাঁদের কর্ম সংস্থান হবে। যেখানে সবাই কাজ পাবেন, কাজ করতে বাইরে চলে যেতে হবে না। শ্রেষ্ঠ পরিকাঠামো তৈরি হবে। গরীব মানুষও সব রকম সুযোগ সুবিধা পাবেন। দেশের সব রকম প্রকল্প সবাই পাবেন। রাজ্যের সব রকম মানুষ একই রকম সুযোগ সুবিধা লাভ করবেন। যেখানে সবকা সাথ, সবকা বিকাশ হবে। তুষ্টিকরণের জায়গা থাকবে না। যেখানে অনুপ্রবেশ বন্ধ হবে। এতদিন ধরে বাংলার মানুষের থেকে যা কিছু ছিনিয়ে নেওয়া হয়েছে, আমি কথা দিচ্ছি, সে সব ফেরত করা হবে। আগামী ৫ বছরে বাংলায়  যে উন্নয়ন হবে, তা আগামী ২৫ বছরের উন্নয়নের আধার হবে।" 

কলকাতা সম্বন্ধে মোদী বলেন, " বিজেপি বাংলায় এলে কলকাতাকে নতুন করে সাজিয়ে তোলা হবে। ইতিমধ্যেই মেট্রো রেলের সম্প্রসারন দ্রুততার সাথে করা হয়েছে। নতুন নতুন রাস্তাঘাট করা হবে।. সব সরকারি কাজ সময়ের মধ্যেই শেষ করা হবে। নতুন নতুন ফ্লাই ওভার তৈরি করা হবে।. যাঁরা ঝুপড়িতে থাকেন, তাঁদের প্রধানমন্ত্রী আবাস যোজনার মাধ্যমে পাকা বাড়ি করে দেওয়া হবে। কৃষক ও মহিলাদের উন্নয়নের ওপর জোর দেওয়া হবে। কাউকে কাজ পেতে আর রাজ্যের বাইরে যেতে হবে না। উচ্চশিক্ষার সব কোর্স বাংলাতেও পড়ানো  হবে।. গরীব মানুষের সন্তানও ডাক্তার বা ইঞ্জিনিয়ারিং পড়তে পারবেন। কলকাতাকে 'সিটি অফ ফিউচার' হিসেবে গড়ে তোলা হবে। ইতিমধ্যে অনেক সময় বরবাদ হয়ে গিয়েছে, আর বরবাদ করার মত হাতে সময় নেই।"

এরপর বিরোধীদের কটাক্ষ করে মোদী বলেন, "বামপন্থীরা একসময় বলতেন কংগ্রেসের কালো হাত ভেঙে দাও, গুঁড়িয়ে দাও। এখন সেই কালো হাত কি সাদা হয়ে গিয়েছে ? সেই হাতের আশীর্ব্বাদ নিতে হচ্ছে আপনাদের ? বাংলার মানুষের জীবনে 'মা মাটি মানুষ' কোনো পরিবর্তন আনতে পারে নি।. কোনো উন্নয়ন করতে পারে নি। এখানে ৮০ বছরের বয়স্ক মায়ের ওপর হামলা চালানো হয়। এরা এদের নিষ্ঠুর চেহারা গোটা দেশকেই দেখিয়ে দিয়েছে। এরা মাটি, পাথর, কাঁকর, বালি সবকিছুই বিক্রি করে দিয়েছে। এই জন্যেই গোটা বাংলা এখন বলছে 'আর নয় অন্যায়'। মা মাটি মানুষের ওপর থেকে বাংলার মানুষের ভরসা উঠে গিয়েছে।"

বিজেপিতে যোগ দিলেন মিঠুন চক্রবর্তী 

এরপর মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে কটাক্ষ করে মোদী বলেন,  "আপনি  তো  বাংলার দিদি ছিলেন, তাহলে হঠাৎ কেন একজনের পিসি হয়ে গেলেন ? দিদি আপনি লিখছেন 'বাংলা তার নিজের মেয়েকেই চায়', কিন্তু আপনি তো শুধু বাংলার মেয়েই নন, আপনাকে আমি অনেকদিন থেকেই চিনি। আপনি তো গোটা দেশের কন্যা। কিছুদিন  আগে আপনি দেখলাম স্কুটি থেকে পরে যাচ্ছিলেন। ভাগ্যিস আপনি পরে যান নি, কেননা যদি পরে যেতেন তাহলে ওই স্কুটি যে রাজ্য বানিয়েছে, সেই রাজ্যই আপনার শত্রু হয়ে উঠত ! যাই হোক, সাবধানে স্কুটি চালাবেন। কেউ স্কুটি থেকে পরে গিয়ে আহত হলে আমার ভাল লাগে না। তবে এখন তো আবার আপনার স্কুটির অভিমুখ ভবানীপুরের বদলে নন্দীগ্রামের দিকে। যাই হোক,  সাবধানে এবং ভালভাবে স্কুটি চালান।"  

এরপর নরেন্দ্র মোদী বলেন, "পশ্চিমবাংলার সব গরীব মানুষ আমার বন্ধু। আমি তাঁদের জন্যে কাজ করতে চাই। কিন্তু কেউ কেউ ভাবছেন, বেশ তো সবকিছু  তাঁদের কব্জায় ছিল, কে আবার এল নতুন বন্ধু হয়ে ! আমি আমার বন্ধুদের পাশেই থাকতে চাই। আপনারাই বলুন এখানে বন্ধুত্ত্ব হবে, নাকি তোলাবাজি হবে ?  নাকি খেলা হবে ? আর কত খেলবেন আপনারা ?  তোলাবাজি, সিন্ডিকেট, কাটমানি সব খেলাই তো খেলে ফেলেছেন, আর কোন খেলা বাকি রেখেছেন আপনারা ? এখানে তো ভর্তির পরীক্ষাতেও খেলা হয়। এখানে তো দুর্নীতির অলিম্পিক খেলা হয়। কিন্তু আমরা আসছি, এবার আপনাদের সব খেলা আমরা বন্ধ করে দেব। তৃণমূলের খেল খতম।"

মোদী বলেন, "আমার ওপর দিদির খুব রাগ। আমাকে কখনো রাবন বলছে, কখনো দানব, দৈত্য, গুন্ডা, যা পারছে তাই বলছে। কথায় কথায় গালি দিচ্ছে। কিন্তু বাংলার গায়ে যে কাদা আপনারা লাগিয়ে দিয়েছেন, বাংলাকে সেই কলঙ্কমুক্ত করার জন্যেই এবার এরাজ্যের সর্বত্র পদ্মফুল ফুটবে। দিদি এখন আর সেই দিদি নেই, দিদির রিমোট কন্ট্রোল এখন অন্যের হাতে, তাই দিদি ভুল কথা বলছেন। এত রেগে যাচ্ছেন। লোকসভায় তৃণমূল হাফ হয়েছিল, এবার তৃণমূল সাফ হয়ে যাবে। ২রা মে তারিখের পর ওদের আর কোনো অস্তিত্ব থাকবে না। ওরা সম্পূর্ণভাবে থেমে  যাবে।"

Loading...

Amazon

https://www.amazon.in/Redmi-8A-Dual-Blue-Storage/dp/B07WPVLKPW/ref=sr_1_1?crid=23HR3ULVWSF0N&dchild=1&keywords=mobile+under+10000&qid=1597050765&sprefix=mobile%2Caps%2C895&sr=8-1

Pages