"মমতাজী আপনার এত ভয় কেন ?" বাংলায় প্রশ্ন জে পি নাড্ডার - আজ খবর । দেখছি যা লিখছি তাই । ডিজিটাল মিডিয়ায় অন্যতম শক্তিশালী সংবাদ মাধ্যম

Sonar Tori


"মমতাজী আপনার এত ভয় কেন ?" বাংলায় প্রশ্ন জে পি নাড্ডার

Share This


আজ খবর (বাংলা), কাটোয়া, বর্ধমান, পশ্চিমবঙ্গ, ০৯/০১/২০২১ : আজ রাজ্যে এলেন বিজেপির সর্ব ভারতীয় সভাপতি জগৎ প্রসাদ  নাড্ডা। প্রথমে বিমানে এসে তিনি নামেন অন্ডালের কাজী নজরুল ইসলাম বিমান বন্দরে, সেখান থেকে হেলিকপ্টারে করে এসে পৌঁছান কাটোয়া শহরে।

কাটোয়া শহরে এসেই জে পি নাড্ডা প্রথমে যান রাধা গোবিন্দ মন্দিরে পুজো দিতে, তারপর শুরু করেন তাঁর রাজনৈতিক কর্মসূচী। জে পি নাড্ডা এরপর জনসভার মঞ্চে উপস্থিত হন। সেখানে কৃষকদের থেকে একমুঠো করে চাল সংগ্রহ করেন। এরপর ভীড়ে ঠাসা ময়দানে উপস্থিত মানুষের উদ্দ্যেশ্যে শ্রী নাড্ডা ভাষণ দেন। তিনি বলেন, "হেলিপ্যাড থেকে এই ময়দান পর্যন্ত মানুষের ভীড় দেখে আমি ভাল ভাবেই বুঝতে পারছি এবার রাজ্যে বিজেপি ক্ষমতায় আসছে। আজ এখান থেকেই আমি কৃষক সুরক্ষা অভিযান শুরু করলাম। আজ থেকে ২৪ তারিখ পর্যন্ত ২৪ হাজার গ্রাম সভায় গিয়ে আমরা এক মুঠো করে অন্ন সংগ্রহ করে কৃষক স্বার্থে লড়াই শুরু করব। ২৪ তারিখ থেকে ৩১ তারিখ পর্যন্ত কৃষকদের ভোজ হবে। আমরা তাঁদের কাছে জানতে চাইব কি কি অসুবিধায় তাঁদেরকে পড়তে হয়েছে। কি কি অন্যায় তাঁদের সাথে হয়েছে। বাংলার কৃষকদের একত্রিত করে আমরা তাঁদেরকে বলব, কৃষকদের পাশে রয়েছে মোদী সরকার। কৃষকদের উন্নয়নের জন্যে ৬ গুন্ বাজেট তিনি বাড়িয়ে দিয়েছেন।" 

কৃষক মথুরা (ধ্রুব) মণ্ডলের বাড়িতে মধ্যাহ্ন ভোজ সারছেন জে  পি নাড্ডা 

শ্রী নাড্ডা বলেন, "আমি জানতে পেরেছি, মমতাজী কৃষক সন্মান নিধি প্রকল্প চেয়ে কেন্দ্রকে চিঠি দিয়েছেন। কিন্তু আমি বলছি, আমরা কৃষকদের জন্যে কৃষক সুরক্ষা অভিযান শুরু করে দিয়েছি। এখন আর আপনার চিঠির কোনো গুরুত্ত্ব নেই। আমরা অনেক দিন ধরেই বলে আসছি এই রাজ্যে কৃষক সন্মান নিধি প্রকল্প শুরু করুন। আপনি শোনেন নি। এখন আপনার যাওয়া নিশ্চিত হয়ে গিয়েছে। এখন আপনার কৃষকদের কথা মনে পড়ল ? নরেন্দ্র মোদী দেশে ১০০টি কৃষক রেল দিয়েছেন। যার মধ্যে কিছু রেল মহারাষ্ট্র থেকে পশ্চিমবাংলার শালিমার পর্যন্ত আসছে। কৃষিতে এই মুহূর্তে দেশের ২৯টি রাজ্যের মধ্যে পশ্চিমবঙ্গের স্থান ২৪ নম্বরে। এই হাল হয়েছে এখানকার কৃষকদের।"

বোলপুর বিধানসভার বিলাতি গ্রাম থেকে গৃহ সম্পর্ক অভিযান করে ফেরার 
পথে বিজেপি কর্মীদের মারধর করে একদল দুষ্কৃতী। তাদের বাইক পুড়িয়ে
দেওয়া হয়.  হাত থেকে বাদ যান নি মহিলারাও। তাঁদের হাত থেকে ছিনিয়ে 
নেওয়া হয় মোবাইল ফোনগুলিও।

কেন্দ্র আয়ুষ্মান ভারত প্রকল্প এনেছিল, সেই সুবিধাটুকুও মমতাজী  রাজ্যের মানুষকে পেতে দেন নি। আমফানে চুরি, ট্রিপল চুরি, চাল চুরি, গরু চুরি, কয়লা চুরি, বালি চুরি, কাটমানি, সিন্ডিকেট, আপনি কি অবস্থায় এনে ফেলেছেন পশ্চিমবাংলার মানুষকে ?  ক্যাগ বলেছে আগামী ৩ মাসের মধ্যে আমফানের  রিপোর্ট দিতে। আপনি সুপ্রীম কোর্টে  চলে গেলেন ? মমতাজী এত ভয় কেন ? প্রধানমন্ত্রী আবাস যোজনায় 'আমার বাড়ি' সিলমোহর দিয়ে নিজেদের প্রকল্প বলে চালিয়ে দিলেন। মোদীর নাম কোন কোন জায়গা থেকে সারাবেন ? ওই নাম তো মানুষের মনের মধ্যে গেঁথে গিয়েছে। পরিযায়ী শ্রমিকদের রেলে করে ফেরাতে মোদী যে ট্রেনের ব্যবস্থা করেছিলেন, সেই ট্রেনের নাম 'করোনা স্পেশ্যাল' কে দিয়েছিল ? বাংলার এখন যা অবস্থা, তাতে অন্ত্যেষ্টি করার জন্যেও কাটমানি দিতে হচ্ছে। আমি বুঝতে পারছি বাংলার মানুষ মনস্থির করেই ফেলেছেন, মমতাজিকে বাড়িতে বসিয়ে বিজেপিকে কাজে নিয়োগ করবেন।" 

Loading...

Amazon

https://www.amazon.in/Redmi-8A-Dual-Blue-Storage/dp/B07WPVLKPW/ref=sr_1_1?crid=23HR3ULVWSF0N&dchild=1&keywords=mobile+under+10000&qid=1597050765&sprefix=mobile%2Caps%2C895&sr=8-1

Pages