ভারত আজ থেকে করোনার বিরুদ্ধে সংহারের যুদ্ধ শুরু করল - আজ খবর । দেখছি যা লিখছি তাই । ডিজিটাল মিডিয়ায় অন্যতম শক্তিশালী সংবাদ মাধ্যম

Sonar Tori


ভারত আজ থেকে করোনার বিরুদ্ধে সংহারের যুদ্ধ শুরু করল

Share This


আজ খবর (বাংলা), নতুন দিল্লী, ভারত, ১৬/০১/২০২১ : অবশেষে শেষ হল দীর্ঘ প্রতীক্ষা। মারণ ভাইরাস করোনার প্রতিষেধক এসে গেল ভারতে, আজ থেকে দেশের সর্বত্র করোনা ভাইরাসের প্রতিষেধক টিকা দেওয়ার কাজ শুরু করা হল. আজ থেকে ভারত করোনা ভাইরাসের বিরুদ্ধে যুদ্ধ শুরু করল।

২০১৯ সালের একেবারে শেষের দিকে গোটা দুনিয়া জানতে পেরেছিল চীনের হুয়ান থেকে ছড়িয়ে পড়েছে মারন ভাইরাস করোনা, যার পোশাকি নাম দেওয়া হয়েছিল কোভিড-১৯; এই ভাইরাস ছড়িয়ে পড়েছিল গোটা বিশ্বে। এই ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন বিশ্বের কোটি কোটি মানুষ। প্রাণ হারিয়েছেন অসংখ্যা মানুষ। মানুষের মনের মধ্যে এক অজানা আশঙ্কা এবং আতঙ্ক দানা বাঁধতে শুরু করেছিল, কেননা এই রোগের কোনো প্রতিষেধক ছিল না। কোনো চিকিৎসা সেভাবে ছিল না। প্রথম দিকে বহু মানুষ করোনা আক্রান্ত হয়ে বিনা চিকিৎসায় মারা গিয়েছেন।  

একে অপরের সংস্পর্শে এলেই এই রোগ সংক্ৰমিত হয়ে যাচ্ছিল। এর ফলে শুরু হল সামাজিক দূরত্ব। একে অপরের সাথে শারীরিক দূরত্বের পাশাপাশি শুরু হয়ে গিয়েছিল মানসিক দূরত্ব। কেননা কেউই বুঝতে পারছিল না সামনের মানুষটি সংক্রমিত হয়েছে কিনা। তৈরি হল স্বাস্থ্য বিধি, আর সেই বিধি মানতে গিয়ে দিনের পর দিন, মাসের পর মাস মানব সভ্যতার সব কিছু যেন স্তব্ধ হয়ে গেল, শুরু হল 'লক ডাউন'। সাভাবিক কাজকর্ম এবং দৈনন্দিন জীবনের সমস্ত প্রাণবন্ত মুহূর্তগুলো যেন সব নিস্পন্দ হয়ে গেল। তবু মানুষ ধৈর্য্য বজায় রেখেছিল।

লক ডাউনের জেরে মানুষ যেন স্থবির হয়ে গেল। এক জায়গা থেকে অন্য জায়গায় যাতায়াত বন্ধ, মেলামেশা বন্ধ, স্বাভাবিক কাজকর্ম বন্ধ, জীবিকা উপার্জন, কাজকর্ম সবকিছুই বন্ধ হয়ে গেল। করোনা ভাইরাস মানুষের জীবন থেকে যেন সব আনন্দটুকু ছিনিয়ে নিয়ে গেল। তার মধ্যে একমাত্র কাজ হয়ে দাঁড়িয়েছিল প্রতিদিন আরও নতুন করে কতজন আক্রান্ত হল আর প্রাণ হারাল সেই সংখ্যার দিকে নজর রেখে নতুন করে আতঙ্কিত হওয়ার পালা। সে যেন এক অন্ধকার জীবন যাত্রা পালন করতে বাধ্য হয়ে চলা একটা অদ্ভুতরকম স্তব্ধতা। এই পরিস্থিতি থেকে কিভাবে বেরিয়ে আসা যায় তার জন্যে সমগ্র মানব সভ্যতা যেন এক হয়ে আকুল প্রার্থনা করে যাচ্ছিল। মানুষ ভাবছিল কবে এই অন্ধকার দিন গিয়ে নতুন দিনের আলো দেখতে পাওয়া যাবে !

ভারতে সেই নতুন সূর্য্যের উদয় ঘটল আজ. ভারতের দুটি সংস্থা ইতিমধ্যেই করোনা ভাইরাসের প্রতিষেধক আবিস্কার করে ফেলেছে। একটি হল সিরাম ইনস্টিটিউট এবং অপরটি হল ভারত বায়োটেক। এই দুই সংস্থার প্রতিষেধককে অনুমোদন দিয়েছে ভারত সরকার। আর আজ থেকেই সেই প্রতিষেধক দেওয়ার কাজ শুরু হয়ে গিয়েছে। ভারতবাসী আজ স্ব্স্তির শ্বাস নিয়েছে। মনের মধ্যে একটা অদ্ভুত শান্তি বিরাজ করছে। যে বিজ্ঞানীরা এই প্রতিষেধক আবিস্কার করেছেন, তাঁদের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। বিশ্বের ৩২টি দেশ এখনই ভারতের কাছে করোনা ভাইরাসের প্রতিষেধক চেয়ে দরবার করেছে।

কিন্তু সবার আগে ভারতের ১৩০ কোটি মানুষ প্রতিষেধক পাবেন, তারপর অন্য দেশ। এমন কথা জানিয়েছে কেন্দ্র সরকার। আজ থেকেই দেশের সর্বত্র করোনা ভাইরাসের প্রতিষেধক দেওয়া শুরু হয়ে গিয়েছে। পশ্চিমবঙ্গেও বিভিন্ন হাসপাতালে আজ করোনা ভাইরাসের প্রতিষেধক দেওয়ার কাজ চলছে। দেশের মানুষ অকুন্ঠ ধন্যবাদ জানিয়েছেন সেইসব বিজ্ঞানীদের, যাঁরা এই প্রতিষেধক আবিস্কার করেছেন, সেই সাথে দেশের কেন্দ্র সরকারকেও, যাঁরা সব ব্যবস্থা সুষ্ঠুভাবে আয়োজন করেছে, যাতে দেশের সব নাগরিক এই প্রতিষেধক পেয়ে সুষ্ঠ জীবন যাপন করতে পারেন। ভারতে আজ নতুন সূর্যোদয় হল।

Loading...

Amazon

https://www.amazon.in/Redmi-8A-Dual-Blue-Storage/dp/B07WPVLKPW/ref=sr_1_1?crid=23HR3ULVWSF0N&dchild=1&keywords=mobile+under+10000&qid=1597050765&sprefix=mobile%2Caps%2C895&sr=8-1

Pages