গঙ্গাসাগর যাত্রার সিদ্ধান্ত ঝুলে রয়েছে এখনো - আজ খবর । দেখছি যা লিখছি তাই । ডিজিটাল মিডিয়ায় অন্যতম শক্তিশালী সংবাদ মাধ্যম

Sonar Tori


গঙ্গাসাগর যাত্রার সিদ্ধান্ত ঝুলে রয়েছে এখনো

Share This

গঙ্গাসাগর যাত্রার সিদ্ধান্ত ঝুলে রয়েছে এখনো


আজ খবর (বাংলা), কলকাতা, পশ্চিমবঙ্গ, ১৩/০১/২০২১ : কথায় বলে 'সব তীর্থ তীর্থ বারবার, গঙ্গাসাগর একবার'।  সেই গঙ্গাসাগর তীর্থ করার জন্যেই বেশ কিছু তীর্থযাত্রী মুখিয়ে থাকলেও এবছর দেশে করোনা পরিস্থিতিতে তীর্থস্নানের বর্তমান অবস্থা  ঘোরালো হয়ে উঠেছে। অনিশ্চিত হয়ে পড়েছে মকর সংক্রান্তির পুন্য লগ্নে সাগরের জলে ডুব দিয়ে পুণ্যস্নান এবং মোক্ষলাভের সুযোগ। 

দেশে করোনা পরিস্থিতিতে স্বাস্থ্যবিধি পালন করার কথা বলা হয়েছে, যার জন্যে নিয়ন্ত্রিত করা হয়েছে  দেশের  সব অনুষ্ঠান এবং উৎসবগুলিকেই। করোনা আবহে তাই গঙ্গাসাগর তীর্থযাত্রাতেও অনিশ্চয়তা দেখা দিয়েছে। বৃহস্প্রতিবার মকর সংক্রান্তির দিনে গঙ্গাসাগরে গিয়ে পুন্য স্নান করা যাবে কিনা তা নিয়ে আদালতে চলছে যুক্তি, তর্ক, পাল্টা যুক্তি, চুল চেরা বিশ্লেষণ ইত্যাদি। তবে গঙ্গাসাগর যাওয়ার জন্যে  বাবুঘাটে ভীড় জমিয়েছেন দূর দূরান্ত থেকে আসা প্রচুর সংখ্যক সাধু ও সন্ন্যাসীরা।

এ বছর গঙ্গাসাগরে ডুব দিয়ে স্নান করা যাবে কিনা নাকি এবার 'ই-স্নান' করা হবে, তাই নিয়ে আজ আদালতে শুনানি চলছে। রাজ্যের এডভোকেট জেনারেল যুক্তি দিয়ে বোঝাতে চেয়েছেন, 'সাগরের জল যেহেতু লবণাক্ত এবং বহমান, তাই সেই জলে ভাইরাস ছড়িয়ে পড়ার সম্ভাবনা খুব বেশি নেই;' কিন্তু এই যুক্তিতে খুব বেশি সন্তুষ্ট দেখায় নি আদালতকে।  আদালত জানিয়ে দেয় , "এই কথা যদি রাজ্যের স্বাস্থ্য আধিকারিক লিখিতভাবে জানাতে পারেন, তাহলেই একমাত্র বিকেল চারটের মধ্যে আদালত গঙ্গাসাগরে ডুব দিয়ে স্নানযাত্রার ব্যাপারে সবুজ সংকেত দিতে পারে।" 

গঙ্গা সাগরে যে ভীড় প্রতিবছর হয়, তাতে করোনা সংক্রান্ত স্বাস্থ্যবিধি লংঘিত হতে পারে। সেক্ষেত্রে করোনা ভাইরাস ব্যাপকভাবে ছড়িয়ে পড়তে পারে। সেই কারণেই আদালতের তরফ থেকে এতটা সতর্কতা অবলম্বন করা হচ্ছে। যদিও সংক্রমণের ভয়ে এবছর অন্যান্য বছরের তুলনায় যাত্রী সংখ্যা ১০ শতাংশে এসে  ঠেকেছে।  এ বারে আর  সেরকম ভীড় নেই বললেই চলে; তবুও সাবধানতার মার নেই। এদিকে সংক্রান্তির দিন থেকেই হরিদ্বারে শুরু হতে চলেছে কুম্ভমেলা। 

আজ খবর (আপডেট) - এ বছর গঙ্গাসাগর যাত্রায় ছাড়পত্র দিয়ে দিল হাইকোর্ট। তবে যাঁরা 'ই-স্নান' করতে চান, তাঁদেরকে কিট  দিতে হবে এবং রাজ্য সরকার যেন 'ই-স্নান' করার জন্যেই মানুষকে উৎসাহিত করেন বলে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে হাইকোর্টের তরফ থেকে। তবে প্রতিবার অন্তত ২৫ লক্ষ মানুষের ভীড় থাকে গঙ্গাসাগর মেলা উপলক্ষে, এবার করোনা আবহে মাত্র আড়াই লক্ষ মানুষের ভীড় হবে বলে মনে করা হচ্ছে। 

Loading...

Amazon

https://www.amazon.in/Redmi-8A-Dual-Blue-Storage/dp/B07WPVLKPW/ref=sr_1_1?crid=23HR3ULVWSF0N&dchild=1&keywords=mobile+under+10000&qid=1597050765&sprefix=mobile%2Caps%2C895&sr=8-1

Pages