'পুলওয়ামায় নাশকতা করতে পাকিস্তান থেকে এসেছিল ১০ লক্ষ পাকিস্তানী টাকা' : এনআইএ - আজ খবর । দেখছি যা লিখছি তাই । ডিজিটাল মিডিয়ায় অন্যতম শক্তিশালী সংবাদ মাধ্যম

Sonar Tori


'পুলওয়ামায় নাশকতা করতে পাকিস্তান থেকে এসেছিল ১০ লক্ষ পাকিস্তানী টাকা' : এনআইএ

Share This

'পুলওয়ামায় নাশকতা করতে পাকিস্তান থেকে এসেছিল ১০ লক্ষ পাকিস্তানী টাকা' :এনআইএ


আজ খবর (বাংলা), নতুন দিল্লী, ভারত, ২৭/০৮/২০২০ : ২০১৯ সালের ১৪ই ফেব্রুয়ারি জম্মু ও কাশ্মীরের পুলওয়ামার লেটপুরায় জঙ্গীরা  বিস্ফোরণ ঘটিয়ে ৪০ সিআরপিএফ জওয়ানকে হত্যা  করেছিল আর সেই নাশকতা ঘটাতে সন্ত্রাসবাদী মহম্মদ উমরের ব্যাঙ্ক একাউন্টে মোট ১০ লক্ষ পাকিস্তানী টাকা দেওয়া হয়েছিল বলে জানাল এনআইএ।

পুলওয়ামা জঙ্গী নাশকতার ঘটনায় তদন্ত করেছিল এনআইএ, তারা  দিন কয়েক আগেই ১৯ জন জঙ্গীর বিরুদ্ধে মোট ১৩,৮০০ পাতার একটি চার্জশিট জমা করেছে আদালতে। যে চার্জশিটের মধ্যে ছিল পাকিস্তানের কুখ্যাত জঙ্গী নেতা মাসুদ আজহারের নামও। এনআইএ প্রমান করে দিয়েছে, পাকিস্তান থেকেই পুলওয়ামায় নাশকতা করার জন্যে টাকা পাঠানো হয়েছিল, অর্থাৎ এই নাশকতার পিছনে ছিল পাকিস্তানের হাত। 

এনআইএ জানিয়েছে পুলওয়ামায় নাশকতা চালানোর জন্যে মূল অভিযুক্ত মহম্মদ উমর ফারুক ২০১৬-১৭ সালে আফগানিস্তানে গিয়ে জঙ্গী শিবিরে বিস্ফোরক সহ নাশকতার অন্যান্য সব বিদ্যা শিখে এসেছিল। এরপর জম্মু ও কাশ্মীরের সাম্বা সেক্টর দিয়ে স্থানীয় দুই সহযোগীর সাহায্যে আরও তিন জঙ্গীকে নিয়ে ভারতে ঢুকে পড়েছিল। এরপরেই সে পুলওয়ামায় নাশকতার ছক কষতে শুরু করেছিল। পাকিস্তানেও তার ব্যাঙ্ক  একাউন্ট ছিল আর সেই একাউন্টেই এসেছিল ১০ লক্ষ পাকিস্তানী টাকা। মহম্মদ উমর সেই টাকা দিয়েই নাশকতার সামগ্রী এবং অন্যান্য খরচগুলি করেছিল। 

মহম্মদ উমরের পিছনে সক্রিয় হাত ছিল জৈশ ই মহম্মদের। এই জঙ্গী গোষ্ঠীর সাহায্যেই মহম্মদ উমর এতবড় নাশকতা করেছিল। জানা গিয়েছে,.মহম্মদ উমরকে আরডিএক্স, জিলেটিন স্টিক ও অন্যান্য সামগ্রী সংগ্রহ করতে সাহায্য করেছিল সাকির বসির নামে আর একজন। সাজ্জাদ আহমেদ ভাট  নামে আর এক জঙ্গী সেই গাড়িটি কিনে নিয়ে এসেছিল, যে গাড়ি করে বিস্ফোরক বয়ে নিয়ে এসে সিআরপিএফ কনভয়ের সাথে ধাক্কা মেরে বিস্ফোরণ ঘটানো হয়েছিল। দুটি আইইডি বিস্ফোরক আনা হয়েছিল পাকিস্তান থেকেই, যার একটির ওজন ছিল ১৬০ কিলো আর একটির ওজন ছিল ৪০ কিলো। এই আইইডি বিস্ফোরকগুলিই সেই গাড়িতে লাগানো হয়েছিল বলে জানিয়েছে এনআইএ। 

এনআইএ তাদের চার্জশিটে মোট ১৯ জন জঙ্গীর নাম দিয়েছে, যাদের মধ্যে বেশ কয়েকজন পাকিস্তানের বাসিন্দা। তবে নাশকতার সাথে  প্রত্যক্ষভাবে যুক্ত ওয়াইজুল ইসলাম শ্রীনগরের বাসিন্দা, মহম্মদ ইকবাল রাথের বদগাঁও এর বাসিন্দা, এবং সাজ্জাদ আহমেদ ভাট অনন্তনাগের বাসিন্দা। 

Loading...

Amazon

https://www.amazon.in/Redmi-8A-Dual-Blue-Storage/dp/B07WPVLKPW/ref=sr_1_1?crid=23HR3ULVWSF0N&dchild=1&keywords=mobile+under+10000&qid=1597050765&sprefix=mobile%2Caps%2C895&sr=8-1

Pages