কাশ্মীরে হিজবুল মুজাহিদিনের কোমর ভেঙে দিয়েছে নিরাপত্তা বাহিনী, আজ আরও খতম ৩ - আজ খবর । দেখছি যা লিখছি তাই । ডিজিটাল মিডিয়ায় অন্যতম শক্তিশালী সংবাদ মাধ্যম

Sonar Tori


কাশ্মীরে হিজবুল মুজাহিদিনের কোমর ভেঙে দিয়েছে নিরাপত্তা বাহিনী, আজ আরও খতম ৩

Share This
 দেশের খবর

আজ খবর (বাংলা), সোপিয়ান , জম্মু ও কাশ্মীর, ১০/০৬/২০২০ : জম্মু ও কাশ্মীর উপত্যকাকে জঙ্গীমুক্ত করতে রীতিমত আদাজল খেয়ে উদ্যোগ নিতে শুরু করেছে ভারত সরকার। আজ জম্মু ও কাশ্মীরের সোপিয়ানে তিন জন জঙ্গীকে এনকাউন্টার করে খতম করল নিরাপত্তা বাহিনী।
অনেক দিন ধরেই কাশ্মীর উপত্যকাকে জঙ্গীমুক্ত করে সেখানে শান্তি ফিরিয়ে আনতে উদ্যোগী হয়েছিল কেন্দ্র সরকার। তাই কাশ্মীরকে জঙ্গীমুক্ত করার জন্যে পুরো সায়িত্বভার সঁপে দেওয়া হয়েছিল সেনাবাহিনীর হাতে। সেই মত কাশ্মীর উপত্যকায় কাজ করে চলেছে আর্মি, সিআরপিএফ, কাশ্মীর পুলিশ এবং অন্যান্য বাহিনীর জওয়ানরা। এই সব বাহিনী একত্রিত হয়ে গঠিত হয়েছিল নিরাপত্তা বাহিনী। এই বাহিনীতে রয়েছে ইন্টেলিজেন্স ব্যুরো এবং আইটি বিশেষজ্ঞদের দল। এই বাহিনী কিছুদিন আগেই কাশ্মীর উপত্যকায় সক্রিয় জঙ্গীদের হিটলিস্ট তৈরী করেছিল।
নিরাপত্তা  বাহিনীর সেই হিট লিস্টে ছিল কাশ্মীর উপত্যকায় সক্রিয় জঙ্গীদের নাম। সেই হিট লিস্ট ধরে ধরে এনকাউন্টার করা হচ্ছে জঙ্গীদের। আবার  যারা হয়ত ততটা সক্রিয় নয়, জঙ্গীদের সাহায্য করে, কিংবা বিচ্ছিন্নতাবাদী নেতাদের পুলিশ আটক বা গ্রেপ্তার করে নিচ্ছে। কাশ্মীর উপত্যকায় যাতে আর কোনোভাবেই সন্ত্রাস মাথা চাড়া  না দিতে পারে তার জন্যে সব রকম উদ্যোগ নিয়েছে কেন্দ্র সরকার। পাশাপাশি উপত্যাকার সাধারণ মানুষের জীবিকা বিকাশ অথবা কর্মসংস্থানের ব্যবস্থাও নেওয়া হয়েছে। অপরাধীদের মধ্যেও অনেককে স্বাভাবিক জীবনে ফিরিয়ে আনার প্রক্রিয়া চলছে।
কাল মাঝরাত্রে ১টা  ৪৫ মিনিট নাগাদ সোপিয়ানের সুগু এলাকা ঘিরে নেয় নিরাপত্তা বাহিনী। সেখানে সারারাত্রি সংঘর্ষ চলে জঙ্গীদের সাথে। আজ ভোর সাড়ে ৫টা নাগাদ ওখানে আরও বাহিনী পাঠানো হয়। ওই অঞ্চলে এখনো পর্যন্ত মোট ৩ জঙ্গীর মৃত্যু হয়েছে বলে জানা গিয়েছে। যদিও সংঘর্ষ এখনো চলছে। সুগুর গোটা এলাকা ঘিরে রেখেছে নিরাপত্তা বাহিনীর জওয়ানরা। শ্রীনগরের ইন্ডিয়ান আর্মির মুখপাত্র এই খবর জানিয়েছেন।
কাশ্মীর উপত্যকায় গত ১৫ দিনে নিরাপত্তা বাহিনীর সাথে এনকাউন্টারে  মোট ২২ জন জঙ্গীর মৃত্যু হয়েছে বলে জানতে পারা গিয়েছে। যার মধ্যে ৮ জন ছিল কুখ্যাত জঙ্গী কমান্ডার। কাশ্মীর উপত্যকায় সবচেয়ে বেশি  সক্রিয় হিজবুল মুজাহিদিনের প্রায় সব কামান্ডারকেই খতম করা হয়েছে বলে খবর। সেক্ষেত্রে কাশ্মীরে হিজবুল মুজাহিদিনের কোনো অস্তিত্বই আর থাকবে না। বর্তমান পরিস্থিতি এমন হয়েছে যে, কাশ্মীরের একটি জঙ্গী সংগঠন অন্য্ একটি জঙ্গী সংগঠনের সদস্যদেরকে ধরিয়ে দিচ্ছে, তাদের গোপন খবর পৌঁছে দিচ্ছে পুলিশের কাছে। তাতে করে তল্লাশি অভিযান চালাতেও অনেক সুবিধা হচ্ছে নিরাপত্তা বাহিনীর কাছে। সবচেয়ে বড় ব্যাপার হল, এখন কাশ্মীরের সাধারণ মানুষও নিরাপত্তা বাহিনীকে সমর্থন করছে এবং জঙ্গীদের ব্যাপারে খবর দিয়ে দিচ্ছে অত্যন্ত গোপনে। কারন কাশ্মীর উপত্যাকার মানুষ বোধ হয় বুঝে গিয়েছে উপত্যকা থেকে বিচ্ছিন্নতাবাদীদের দৌরাত্ম শেষ হতে চলেছে। আর বর্তমান কেন্দ্র সরকার কঠোরভাবে কাশ্মীরকে সন্ত্রাস মুক্ত করেই তবে ছাড়বে। কাশ্মীর উপত্যকায় এখন সাধারণ মানুষের মন থেকে ভয় অনেকটাই চলে গিয়েছে। তাঁরা এখন শান্তি চান এবং  তাঁদের পরবর্তী  প্রজন্মের সুরক্ষা চান।

নিউজ আপডেট : সোপিয়ানের  সুগু এলাকায় গতকাল মাঝরাত্রি থেকেই এনকাউন্টার চলছিল নিরাপত্তা বাহিনী ও জঙ্গীদের মধ্যে। এই খবর আমরা যখন করেছিলাম, তখন পর্যন্ত ৩ জন জঙ্গীর মৃত্যু হয়েছিল বলে আমাদের কাছে খবর এসেছিল। কিন্তু ওই এলাকায় সংঘর্ষ তার পরেও চলছিল। অবশেষে খবর পাওয়া গেল, আরও দুই জঙ্গীর মৃত্যু হয়েছে সেখানে। অর্থাৎ এই নিয়ে মোট ৫ জঙ্গীর মৃত্যু হল সুগু এলাকায়। গত ৪ দিনে সোপিয়ানে  মোট ১৭ জঙ্গীকে নিকেশ করেছে নিরাপত্তা বাহিনী।
Loading...

Amazon

https://www.amazon.in/Redmi-8A-Dual-Blue-Storage/dp/B07WPVLKPW/ref=sr_1_1?crid=23HR3ULVWSF0N&dchild=1&keywords=mobile+under+10000&qid=1597050765&sprefix=mobile%2Caps%2C895&sr=8-1

Pages