সমুদ্রের বাস্তুতন্ত্র বাঁচাবে সমুদ্রের নিচের শৈবালগুলি - আজ খবর । দেখছি যা লিখছি তাই । ডিজিটাল মিডিয়ায় অন্যতম শক্তিশালী সংবাদ মাধ্যম

Sonar Tori


সমুদ্রের বাস্তুতন্ত্র বাঁচাবে সমুদ্রের নিচের শৈবালগুলি

Share This
অফবিট

আজ খবর  (বাংলা),   নতুন দিল্লী,   ভারত,  ২৬/০৬/২০২০ :    বিশ্বজুড়ে এক স্বাস্থ্যকর সামুদ্রিক বাস্তুতন্ত্র গড়ে তুলতে সমুদ্রের নিচে থাকা প্রাচীন শৈবালগুলির ভূমিকা অপরিসীম। 
ন্যাশনাল সেন্টার অফ পোলার অ্যান্ড ওশেন রিসার্চ (এনসিপিওআর)-এর পক্ষ থেকে প্রাচীন সামুদ্রিক শৈবালের ওপর এক সূক্ষাতীসূক্ষ সমীক্ষায় জানা গেছে দক্ষিণ ভারত মহাসাগরে মহাসাগরীয় ক্যালসিয়াম কার্বোনেটের ঘনত্ব হ্রাস পেয়েছে। ক্যালসিয়াম কার্বোনেটের ঘনত্ব হ্রাস পাওয়ার কারণ হল অন্য একটি এক কোষ বিশিষ্ট শৈবাল (ডায়াটোম)-এর ঘনত্ব বৃদ্ধি পাওয়া। এক কোষ বিশিষ্ট এই শৈবালের ঘনত্ব বৃদ্ধির দরুণ প্রাচীন সামুদ্রিক শৈবাল (কোকোলিথোফোরেজ)-এর ঘনত্ব কমছে এবং এ ধরণের শৈবালের স্বাভাবিক বৃদ্ধি প্রভাবিত হচ্ছে। স্বাভাবিকভাবেই এর বিরূপ প্রভাব পড়ছে মহাসাগীয় বাস্তুতন্ত্রের ওপর।
উল্লেখ করা যেতে পারে, কোকোলিথোফোরেজ প্রাচীন শৈবালটি মহাসাগরের জলের উপরিস্তরে বেঁচে থাকে। এ কারণেই সামুদ্রিক বাস্তুতন্ত্রের ওপর এ ধরণের শৈবালের গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রয়েছে। কয়েক শতাব্দী ধরে এ ধরণের শৈবালগুলি কার্বন নিঃসরণের ক্ষেত্রে বড় ভূমিকা পালন করে আসছে। প্রাচীন এই শৈবাল মহাসাগরে ৪০ শতাংশ পর্যন্ত ক্যালসিয়াম কার্বোনেট উপাদন করে এবং মহাসাগরীয় জীব জগতের প্রাথমিক উপাদনশীলতায় ২০ শতাংশ অবদান যোগায়।
এনসিপিওআর, ন্যাশনাল ইন্সটিটিউট অফ ওশেনোগ্রাফি এবং গোয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের পক্ষ থেকে দাবি করা হয়েছে দক্ষিণ ভারত মহাসাগরে প্রাচীন শৈবাল কোকোলিথোফোরেজের প্রাচুর্য এবং সমৃদ্ধময় বৈচিত্র্যের ক্ষেত্রে একাধিক পরিবেশগত প্রভাব রয়েছে। মহাসমুদ্রের জলে সিলিকেট, ক্যালসিয়াম কার্বনেট, জলের ঘনত্ব অনুযায়ী আলো চলাচল এবং মাইক্রো নিউক্লিয়েন্ট উপাদানগুলি ওই ধরণের শৈবালের বিকাশে সাহায্য করে থাকে।
সমীক্ষায় আরও প্রকাশ, প্রাচীন শৈবাল কোকোলিথোফোরেজের বৈচিত্র্যে হ্রাস লক্ষ্য করা যায় গ্রীষ্ণের গোড়ার দিকে এবং গ্রীষ্ণের শেষ পর্যায়ে। এই সময় অপর প্রজাতির শৈবাল ডায়াটোমের উপস্থিতি বৃদ্ধি পায়। সমুদ্রের বরফ গলে যাওয়ার দরুণ এবং মহাসাগরের জলে লবনাক্তের পরিমাণ বৃদ্ধি পাওয়ায় ডায়াটোম শৈবালের ঘনত্ব বাড়ে। সমীক্ষায় আরও বলা হয়েছে, প্রাচীন শৈবাল কোকোলিথোফোরেজের ঘনত্ব হ্রাস পাওয়ার পিছনে জলবায়ুর পরিবর্তন একটি বড় কারণ। ভিন্ন ভিন্ন ধরণের পরিবেশগত পরিস্থিতি এবং এই প্রজাতির শৈবালের পরিবেশগত পরিবর্তনগুলিকে মানিয়ে নেওয়ার ক্ষমতাই কোকোলিথোফোরেজ শৈবালের ভবিষ্য স্থির করে দেবে। সামুদ্রিক বাস্তুতন্ত্র এবং বিশ্বজুড়ে কার্বন নিঃসরণ ব্যবস্থায় ইতিবাচক পরিবর্তন নিয়ে আসার ক্ষেত্রে এনসিপিওআর-এর এই সমীক্ষা অদূর ভবিষ্যতে গুরুত্বপূর্ণ হয়ে উঠতে চলেছে। উল্লেখ করা যেতে পারে এনসিপিওআর-এর এই গবেষণাপত্রটি আন্তর্জাতিক স্তরে অগ্রণী Deep Sea Research Journal-এ প্রকাশিত হয়েছে।

Loading...

Amazon

https://www.amazon.in/Redmi-8A-Dual-Blue-Storage/dp/B07WPVLKPW/ref=sr_1_1?crid=23HR3ULVWSF0N&dchild=1&keywords=mobile+under+10000&qid=1597050765&sprefix=mobile%2Caps%2C895&sr=8-1

Pages