১৪০০ কিলোমিটার স্কুটি চালিয়ে ছেলেকে উদ্ধার করে নিয়ে এলেন এক মা - আজ খবর । দেখছি যা লিখছি তাই । ডিজিটাল মিডিয়ায় অন্যতম শক্তিশালী সংবাদ মাধ্যম

Sonar Tori


১৪০০ কিলোমিটার স্কুটি চালিয়ে ছেলেকে উদ্ধার করে নিয়ে এলেন এক মা

Share This
অফবিট
রাজিয়া বেগম ও তাঁর ছেলে 

আজ খবর(বাংলা), নিজামাবাদ, তেলেঙ্গানা, ১০/০৪/২০২০ : যত কষ্টই হোক না কেন, একজন মা তার সন্তানকে কখনোই বিপদে পড়তে দেন না, তারই উৎকৃষ্ট প্রমান মিলল তেলেঙ্গানায়। প্রায় ১৪০০ কিলোমিটার স্কুটি চালিয়ে লক ডাউনের মধ্যেই ছেলেকে উদ্ধার করে নিজের কাছে নিয়ে এলেন এক মা।
করোনা মোকাবিলার জন্যে গোটা দেশ জুড়ে চলছে লক ডাউন, তাই রাস্তাঘাটে গাড়ি চলাচল প্রায় নেই, কিন্তু তেলেঙ্গানা রাজ্যের নিজামাবাদের স্কুল টিচার রাজিয়া বেগমের ছেলে আটকে পড়েছিল নেলোরে। লক ডাউনের ফলে ছেলে ঘরে ফিরতে পারছিল না, অসহায় সন্তানকে নিজের কাছে ফিরে পেতে আকুল হয়েছিলেন রাজিয়া। কিন্তু গোটা দেশ জুড়ে লক ডাউন চলছে। এদিকে ছেলে ঠিকমত খাবার পাচ্ছে না, অসহায় হয়ে পড়ে  রয়েছে অন্ধ্র প্রদেশের পেন্না নাদির ধারে নেল্লোর শহরে।
রাজিয়া ঠিক করে ফেললেন, যেভাবেই হোক নিজের ছেলেকে উদ্ধার করতেই হবে।  কিন্তু কিভাবে যে ছেলেকে উদ্ধার করে আনা যায়, সেটাই ভেবে পাচ্ছিলেন না তিনি। অবশেষে দ্বারস্থ হলেন স্থানীয় পুলিশের, দেখা করলেন এসিস্ট্যান্ট পুলিশ কমিশনার জয়পাল রেড্ডির সাথে, তাঁকে পরিস্থিতি বুঝিয়ে বললেন, তারপরে এসিপি জয়পাল রেড্ডি একটি অনুমতি পত্র লিখে দিলেন। ব্যস, আর দেরি করেন নি রাজিয়া, নিজের স্কুটিতে তেল ভরেই রওনা দিলেন নেল্লোরের উদ্দেশ্যে।

পথে বেশ কয়েক জায়গায় তাঁকে পুলিশ আটকে দিয়েছিল, কিন্তু এসিপি রেড্ডির চিঠি দেখাতেই মিলে  গিয়েছিল সবুজ সিগন্যাল । নিজামাবাদ থেকে নেল্লোরের দূরত্ব প্রায় ৬৩০ কিলোমিটার, কিন্তু ছেলে যেখানে রয়েছে, সেখানে পৌঁছাতে গেলে পার হাতে হবে আরও কিছুটা রাস্তা। যাওয়া আসা মিলিয়ে মোট ১৪০০ কিলোমিটার রাস্তাও  দমাতে পারেনি ওই মাকে। ঘন  অরণ্যের মধ্যে দিয়েও একাকী পাড়ি  দিয়েছেন স্কুটিতে চেপে। 
এসিপি রেড্ডির থেকে চিঠি পেয়েই মাঝ বয়সী  রাজিয়া রওনা দিয়েছিলেন, আর গত বুধবার ৮ই এপ্রিল তিনি ছেলেকে সঙ্গে করেই স্কুটিতে চেপে নিজামাবাদের বাড়িতে ফিরে এলেন নিরাপদে। ছেলেকে সঙ্গে করে নিয়ে এসে খুশির বাঁধ ভেঙেছে রাজিয়া বেগমের। বার বার ধন্যবাদ জানিয়েছেন এসিপি জয়পাল রেড্ডি সহ পুলিশ প্রশাসনকে। ছেলে কি তার মাকে ধন্যবাদ জানালো ? ওসবের পরোয়া করেন না রাজিয়া, ছেলে নিজের কাছে ফিরে এসেছে, এর থেকে সুখের কিছুই হতে পারে না তাঁর কাছে। 
Loading...

Amazon

https://www.amazon.in/Redmi-8A-Dual-Blue-Storage/dp/B07WPVLKPW/ref=sr_1_1?crid=23HR3ULVWSF0N&dchild=1&keywords=mobile+under+10000&qid=1597050765&sprefix=mobile%2Caps%2C895&sr=8-1

Pages