করোনা মহামারীর মোকাবিলার জন্যে এডিবি থেকে ১৫০ কোটি ডলার ঋণ নেবে ভারত - আজ খবর । দেখছি যা লিখছি তাই । ডিজিটাল মিডিয়ায় অন্যতম শক্তিশালী সংবাদ মাধ্যম

Sonar Tori


করোনা মহামারীর মোকাবিলার জন্যে এডিবি থেকে ১৫০ কোটি ডলার ঋণ নেবে ভারত

Share This
 দেশের খবর

আজ খবর (বাংলা), নতুন দিল্লী, ২৮/০৪/২০২০ : নোভেল কোরোনা ভাইরাসের সংক্রমণ মোকাবিলায়  ভারত, এশীয়  উন্নয়ন ব্যাঙ্ক (এডিবি) থেকে ১৫০ কোটি ডলার ঋণ নেবার জন্য আজ একটি চুক্তিতে স্বাক্ষর করেছে। এই মহামারীর সংক্রমণ ঠেকাতে এবং দরিদ্র ও আর্থিক দিক থেকে পিছিয়ে পড়া বিশেষ করে মহিলা এবং দূর্বলতর শ্রেণীর মানুষের সামাজিক সুরক্ষার মত বিষয়গুলির ওপর প্রাধান্য দিয়েই  এই অর্থ ব্যয় করা হবে।

কোভিড-১৯ অ্যাকটিভ রেসপন্স অ্যান্ড এক্সপেন্ডিচার সাপোর্ট প্রোগ্রাম (কেয়ার্স)-এর  আওতায় এই ঋণ দানের বিষয়ে চুক্তিতে স্বাক্ষর করেন কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রকের আর্থিক বিষয়ক দপ্তরের (ফান্ড ব্যাঙ্ক ও  এডিবি বিভাগ) অতিরিক্ত সচিব শ্রী সমীর কুমার খাড়ে এবং এডিবির ভারতের নির্দেশক মিঃ কেনিচি ইয়োকোইয়ামা।

কোভিড-১৯ এর কারণে স্বাস্থ্য ও আর্থ সামাজিক ক্ষেত্রে যে বিরূপ প্রভাব দেখা দিচ্ছে, তার মোকাবিলায় সরকারকে সাহায্য করার জন্য এই ঋণদানের বিষয়টি এডিবির বোর্ড অফ ডিরেক্টরস অনুমোদন করেছে।   

শ্রী খাড়ে জানান, “ (i)কোভিড-১৯ এর সংক্রমণ মোকাবিলা করতে স্বাস্থ্য পরীক্ষা  এবং চিকিৎসার ক্ষমতা দ্রুত বাড়াতে এবং  (ii) আগামী ৩ মাসে ৮০ কোটির বেশি মহিলা ও পিছিয়ে পড়া গোষ্ঠী সহ আর্থসামাজিক ভাবে পেছনের সারির মানুষের সামাজিক সুরক্ষার জন্য  সরকারের উদ্যোগে সাহায্যর হাত বাড়িয়ে দেওয়ায় আমরা এডিবিকে ধন্যবাদ জানাই। মার্চ মাসে সরকার যে সুদূর প্রসারী পরিকল্পনা করেছে তা বাস্তবায়নে এডিবির আর্থিক ও কারিগরী সহায়তা খুবই সময়োপযোগী”। 

মিঃ ইয়াকোইয়ামা বলেন, “কোভিড-১৯ মহামারী মোকাবিলায় সমাজের ঝুঁকিপূর্ণ মানুষরা  যাতায়াতের  বিধিনিষেধের ফলে যে সঙ্কটের সম্মুখীন হয়েছেন তার সমাধানের জন্য এবং সরকার যে দৃঢ় পদক্ষেপ নিয়েছেন, তাকে সাহায্য করার জন্য এডিবি ভারতকে সবথেকে বেশি পরিমাণ ঋণ দেবার সুযোগ পেয়ে আনন্দিত। স্বাস্থ্য পরিষেবার উন্নয়ন এবং মহিলা ও পিছিয়ে পড়া গোষ্ঠী সহ আর্থসামাজিক দিক থেকে পেছনের সারির মানুষদের সামাজিক সুরক্ষার জন্য সরকারকে আমরা সাহায্য দিয়ে যাব”।   

স্বাস্থ্য ক্ষেত্রে ভারতের জরুরী সাহায্য, মহামারীর ফলে আর্থিক প্রভাব থেকে বেরিয়ে আসা, দেশের আর্থিক বিকাশকে আবারও সঠিক পথে চালিত করতে সাহায্য করার জন্য এডিবির অঙ্গীকারের বিষয়টি ব্যাঙ্কের গভর্নর মিঃ মাসাতসুগু আসাকাওয়া  গত ৯ই এপ্রিল কেন্দ্রীয় অর্থ ও কর্পোরেট বিষয়ক মন্ত্রী শ্রীমতী নির্মলা সীতারমনকে টেলিফোনে আলোচনার সময় জানিয়েছিলেন। সরকারের এই মুহূর্তের চাহিদা পূরণের জন্য কেয়ার্স প্রকল্প সাহায্য করবে। 

কেয়ার্স প্রকল্পে  ভারতের অর্থনীতিকে চাঙ্গা করা, আর্থিক গতিশীলতা ফিরিয়ে আনা এবং ভবিষ্যতের নানা বিরূপ প্রভাব মোকাবিলায় এডিবি সাহায্য করবে। এই অর্থসাহায্যে অতি ক্ষুদ্র, ক্ষুদ্র ও মাঝারী শিল্পোদ্যোগ সহ সব ধরণের ক্ষতিগ্রস্ত শিল্পোদ্যোগীদের সাহায্যার্থে আর্থিক সহায়তার ব্যবস্থা থাকবে। এছাড়াও, আন্তর্জাতিক ও জাতীয় স্তরে অতি ক্ষুদ্র, ক্ষুদ্র ও মাঝারী শিল্পোদ্যোগের উৎপাদিত সামগ্রী বিক্রির ব্যাপারে সাহায্য করার সংস্থানও থাকবে। শহরাঞ্চলে প্রাথমিক স্বাস্থ্য কেন্দ্রের সুসংহত উন্নয়ন ও সার্বিক স্বাস্থ্য পরিকাঠামো উন্নয়নেও এই অর্থ  কাজে  লাগবে।

কোভিড-১৯ এর ফলে উদ্ভূত পরিস্থিতির মোকাবিলা করতে ভারত  ইতিমধ্যেই  অনেক পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে। এর মধ্যে রয়েছে স্বাস্থ্য পরিষেবার উন্নতিতে ২০০ কোটি ডলার ব্যয়ের উদ্যোগ, মহিলা ও পিছিয়ে পড়া গোষ্ঠী সহ আর্থসামাজিক দিক থেকে পেছনের সারির মানুষদের আর্থিক সাহায্যের জন্য তাঁদের ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টে .সরাসরি টাকা পাঠানো, নিত্যপ্রয়োজনীয় সামগ্রী, রান্নার গ্যাস বন্টনের জন্য ২৩০০কোটি ডলারের একটি প্যাকেজ চালু করা ইত্যাদি। ভারতের রিজার্ভ ব্যাঙ্ক, নগদ অর্থের যোগান বাড়াতে নানা উদ্যোগ গ্রহণ করেছে। এই অর্থ ঋণদানে ব্যবহার করা যাবে।

এশিয়া ও প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চলকে সমৃদ্ধশালী, স্থিতিশীল ও সুসংহত করে তোলা এবং দারিদ্র দূরীকরণে এডিবি অঙ্গীকারবদ্ধ। ১৯৬৬ সালে স্থাপিত এই ব্যাঙ্কের এই অঞ্চলের ৪৯টি সদস্য সহ মোট সদস্য সংখ্যা ৬৮।
Loading...

Amazon

https://www.amazon.in/Redmi-8A-Dual-Blue-Storage/dp/B07WPVLKPW/ref=sr_1_1?crid=23HR3ULVWSF0N&dchild=1&keywords=mobile+under+10000&qid=1597050765&sprefix=mobile%2Caps%2C895&sr=8-1

Pages