আমেরিকার থেকে ভারত কি পাবে, বোঝা যাবে মেগা ডিল শেষ হলেই - আজ খবর । দেখছি যা লিখছি তাই । ডিজিটাল মিডিয়ায় অন্যতম শক্তিশালী সংবাদ মাধ্যম

Sonar Tori


আমেরিকার থেকে ভারত কি পাবে, বোঝা যাবে মেগা ডিল শেষ হলেই

Share This
দেশের খবর
দিল্লির হায়দ্রাবাদ হাউসে মোদির সাথে ট্রাম্প দম্পতি 

আজ খবর (বাংলা), নতুন দিল্লী, ২৫/০২/২০২০ :  আমেরিকার প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প পৌঁছালেন দিল্লীর হায়দ্রাবাদ হাউসে। আজ এখানে তিনি নরেন্দ্র মোদির সাথে বৈঠকে  বসেছেন, শুরু হয়েছে 'মেগা ডিল' বৈঠক।
গতকালই সপরিবারে ভারত সফরে এসেছেন আমেরিকার রাষ্ট্রপতি ডোনাল্ড ট্রাম্প। ভারতে এসে প্রথমে তিনি গিয়েছিলেন আমেদাবাদের সবরমতি আশ্রমে, সেখান থেকে আমেদাবাদের মোতেরা স্টেডিয়ামের উদ্বোধনে। গতকাল আগ্রায় তাজমহল দর্শন করে রাতে এসে পৌঁছেছিলেন রাজধানী দিল্লীতে। ভারতের আপ্যায়নে তিনি যে আপ্লুত তা বার বার স্বীকার করে নিয়েছেন আমেরিকার রাষ্ট্রপতি ট্রাম্প। আজ রাজঘাটে গিয়ে মহাত্মা গান্ধীর সমাধিতে মাল্যদান করেছেন, সেখানেই বৃক্ষরোপন অনুষ্ঠানে বেলচা দিয়ে মাটি সরিয়ে গাছ পুঁতেছেন ট্রাম্প দম্পতি। রাইসিনা হিলসে রাষ্ট্রপতি ভবনে তাঁকে রাজকীয় সন্মান দিয়েছেন রামনাথ কোবিন্দ। 
এবার সময় এসেছে সেই বৈঠকের, যে বৈঠকের দিকে তাকিয়ে রয়েছে দেশ। ট্রাম্পের ভারত সফরে দেশ কতটা লাভবান হয় সে দিকেই তাকিয়ে রয়েছে গোটা দেশ। আমেরিকার থেকে ৩০০ কোটি ডলার দিয়ে ভারত কিনতে চলেছে অত্যাধুনিক ৬টি এপাচে হেলিকপ্টার। যে হেলিকপ্টার দিয়ে সমুদ্রের ওপর  শত্রুপক্ষের বিরুদ্ধে ব্যাপক আধিপত্য রাখা সম্ভব। এই ধরনের হেলিকপ্টার এখনো পর্যন্ত আমেরিকা অন্য কোনো দেশকে দেয় নি। কিন্তু ভারত কি শুধু অস্ত্রের ক্রেতা হিসেবেই থেকে যাবে ? এই মুহূর্তে ভারত অস্ত্র ক্রেতা হিসেবে বিশ্বের এক নম্বর স্থানে রয়েছে। কিন্তু শুধু ক্রেতা হিসেবে থেকে গেলেই হবে না, তার সঙ্গে চাই টেকনোলজিও। যে টেকনোলজি দিয়ে ভারতও অত্যাধুনিক অস্ত্র সম্ভার তৈরী করতে পারবে। সেটা যে আমেরিকা ভারতকে  দিতে পারে তার ইঙ্গিত গতকাল মোতেরা স্টেডিয়ামের ভাষণে ট্রাম্প দিয়েছিলেন। 
আজ ট্রাম্পের সাথে মোদির কথা হতে পারে আমেরিকার H1B  ভিআ নিয়েও, বিশেষ করে যে সব ভারতীয়রা আমেরিকায় অল্প দিনের জন্যে যাচ্ছেন কোনো কাজে, কোনো গবেষণার জন্যে বা ব্যবসায়িক কারণে, তাঁদের জন্যে দেওয়া সুযোগ  সুবিধে নিয়ে কথা হতে পারে দুই রাষ্ট্র প্রধানের মধ্যে।
আমেরিকার রয়েছে টাকা, ভারতের রয়েছে টেকনোলজি এমন ক্ষেত্র নিয়েও আলোচনা হতে পারে, যেমন আমেরিকায় অষুধের  দাম অনেক বেশি, তাই আমেরিকা ভারত থেকে ফার্মাসিউটিক্যাল প্রোডাক্ট আমদানি করে, এছাড়াও রয়েছে এনার্জি সেক্টরের প্রোডাক্ট বা ইনফরমেশন টেকনোলজি, ইত্যাদি নিয়ে কথা হতে পারে। ভারতে আমেরিকান প্রোডাক্টসের ওপর যে ট্যাক্স ধার্য করা রয়েছে, তা যে খুব বেশি, তা নিয়ে ভারতে আসার আগেই সরব হয়েছিলেন ট্রাম্প, সেই ট্যাক্স যাতে কমিয়ে দেওয়া হয় সেটা নিয়েও আলোচনা হতে পারে। শুধু তাই নয়, ব্যবসা ও বাণিজ্যের ব্যাপারেও নানারকম সুবিধে আদায় করে নিতে পারে দুই দেশই, অপরের কাছে থেকে। 
আজ সবচেয়ে বেশি যা নিয়ে আলোচনা হতে পারে বলে মনে করা হচ্ছে, তা হল প্রতিরক্ষা নিয়ে। ভারত ও আমেরিকার সেনাবাহিনী যৌথভাবে মহড়া করেছে। তার পর থেকেই ভারতীয় প্রতিরক্ষায় আগ্রহ বেড়েছে আমেরিকার। শুধু তাই নয়, আজ দুই দেশের মধ্যে আলোচনা হতে পারে সন্ত্রাসবাদ দমন নিয়েও, ইরান, সিরিয়া, তুরস্ক নিয়েও আলোচনা হতে পারে। পাকিস্তান নিয়েও আলোচনা হতে পারে, এমনকি আমাদের দেশে যে সিএএ বিরোধী আন্দোলন চলছে, আলোচনার টেবিলে উঠে আসতে  পারে সেই প্রসঙ্গও। 
দুপুর ১টার সময় ট্রাম্প ও নরেন্দ্র মোদির একসাথে সাংবাদিক  বৈঠক করার কথা রয়েছে। সেই সাংবাদিক বৈঠকেই জানা যেতে পারে 'মেগা ডিল' বৈঠকে কি কি কথা হল দুই শক্তিধর রাষ্ট্রপ্রধানের। তবে দুই দেশের মধ্যে এমন কিছু বিষয় নিয়েও কথা হতে পারে, যা হয়ত সর্বসমক্ষে আনা নাও হতে পারে। এরপর বিকেল পাঁচটার সময় ডোনাল্ড ট্রাম্প ফের সাংবাদিক বৈঠক করবেন বলে জানা গিয়েছে।
Loading...

Amazon

https://www.amazon.in/Redmi-8A-Dual-Blue-Storage/dp/B07WPVLKPW/ref=sr_1_1?crid=23HR3ULVWSF0N&dchild=1&keywords=mobile+under+10000&qid=1597050765&sprefix=mobile%2Caps%2C895&sr=8-1

Pages