আজ কেন্দ্রীয় বাজেট পেশ করলেন অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারামন - আজ খবর । দেখছি যা লিখছি তাই । ডিজিটাল মিডিয়ায় অন্যতম শক্তিশালী সংবাদ মাধ্যম

Sonar Tori


আজ কেন্দ্রীয় বাজেট পেশ করলেন অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারামন

Share This
 দেশের খবর

আজ খবর (বাংলা), নতুন দিল্লী, ০১/০২/২০২০ : আজ সংসদে বাজেট পেশ করলেন দেশের অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারামন, এক নজরে দেখে নেওয়া যাক আজকের বাজেট -
নির্মলা সীতারামন বলেন, "দেশের মানুষকে সেবা দিতে আমরা দক্ষ। জনমোহিনী রাজনীতির জন্যে এই বাজেট নয়। আর্থিক বৃদ্ধির হার বাড়ানোই এই বাজেটের । সেকারের খরচ আগের চেয়ে কমেছে। একটি ভাল দেশের পাঁচটি লক্ষণ থাকে, সেগুলি হল - ভাল স্বাস্থ্য, ভাল শস্য, যথেষ্ট সম্পদ, সুখ ও শান্তি এবং নিরাপত্তা। আমরা এর প্রত্যেকটিতেই গুরুত্ব দিয়েছি। ভারত বিশ্বের পঞ্চম বৃহত্তম অর্থনীতির দেশ। দেশের সার্বিক উন্নয়নে কাজ করছে কেন্দ্র সরকার। প্রত্যেক মানুষের উন্নয়ন সরকারের লক্ষ্য।
জিএসটি - জিএসটি হল দেশের ঐতিহাসিক একটি সিদ্ধান্ত, এর জন্য প্রয়াত অরুন জেটলির অবদান অনাবদ্য । জিএসটির ফলে দেশের অর্থনীতি মজবুত হয়েছে। জিএসটিতে কেন্দ্র ও রাজ্য কারোর স্বার্থ ক্ষুন্ন হয়নি। ১৬ লাখ নতুন করদাতা সামগ্যোজিত হয়েছে। আগের থেকে মানুষের করে ক্ষমতা বেড়েছে। দারিদ্র সীমার ওপরে এসেছেন দেশের ২৭ কোটি মানুষ।১লা এপ্রিল থেকে জিএসটির নতুন আবেদন । জিএসটি সাধারণ মানুষের খরচ কামিয়েছে ৪%; 
কৃষি - ২০২০ সালের মধ্যে কৃষকদের যায় দ্বিগুন করার উদ্যোগ। কৃষি, সেচ ও গ্রামোন্নয়নে আরও উদ্যোগ। আরও ৬.১১ কোটি কৃষককে প্রধানমন্ত্রী কিষান যোজনার অধীনে নিয়ে আসার উদ্যোগ। কৃষকদের উন্নয়নের জন্যে ১৬ দফা যোজনা। কৃষক স্বার্থে তৈরী হবে আরও অনেকগুলি হিমঘর। দেশের সুখ ১০০ জেলার ওপর বিশেষ নজরদারি। কৃষক স্বার্থে চালু হবে কৃষক রেল। হর্টিকালচারের লক্ষ্যে এক জেলায় এক । কৃষি তথ্য মজুতে ডেটা ব্যাংক।
শিক্ষা - শিক্ষা খাতে বরাদ্দ ৯৯,৩০০ কোটি টাকা। শিক্ষায় বিদেশী বিনিয়োগের দরজা খুলে দেওয়া হল। শিক্ষক, নার্স ও প্যারা টিচারদের চাহিদা পূরণ করতে ব্যবস্থা। অনলাইন ডিগ্রি কোর্স জোর। স্থানীয় প্রশাসনে ইন্টার্নশিপের ওপর । ভাড়াটে উচ্চ শিক্ষায় জোর। এশিয়া ও আফ্রিকার ছাত্রদের ভাড়াটে উচ্চশিক্ষার ওপর । সদয় হওয়া ইঞ্জিনিয়ারদের ১ ভবছরের ইন্টার্নশিপের । জাতীয় ফরেনসিক বিদ্যালয় চালু করা হবে। বেশি বাঁচাও- বেশি প্রায় প্রকল্পে । শিক্ষার হার ছেলেদের থেকে এখন মেয়েরা বেশি । 
উপকূল - সামুদ্রিক মৎস্য চাষে বিশেষ নজর। উপকূল এলাকায় যুবকদের । মৎস্যচাষে যুবকদের বিশেষ উৎসাহ প্রদানের মাধ্যমে সাগর মিত্র । মৎস্য উৎপাদনের নতুন টার্গেট ২ লক্ষ টন। মোট ২০০০ কিলোমিটার উপকূল সড়ক বানানো হবে।
পরিবহন - চালু  হবে নতুন অসামরিক বিমান পরিবহন । ২০২৪এর মধ্যে কুরআন প্রকল্পে আরও ১০০টি বিমান বন্দর চালু করা হবে।২৫০০ কিলোমিটার নতুন হাইওয়ে তৈরী করা হবে। চেন্নাই - ব্যাঙ্গালোর নতুন এক্সপ্রেস। তেজাসের মত আরও ট্রেন চালানো । ২৭,০০০ কিলোমিটার রেল লাইনে বৈদ্যুতিকরন।  সৌর বিদ্যুতে জোর দেবে রেল; আরও ৫৫০টি স্টেশনে ওয়াই ফাই। রেল লাইন বরাবর সোলার প্যানেল বসানো হবে । পরিবহন খাতে বরাদ্দ ১ লক্ষ ৭০ হাজার কোটি টাকা। রেলের জমিতেই রেল নতুন লাইন পাতবে।
স্বাস্থ্য - আয়ুষ্মান ভারত প্রকল্পে নতুন হাসপাতাল গড়ে তোলা হবে,  এতে কর্মসংস্থান বাড়বে। ১১২ জেলায় পিপিপি মডেলে নতুন । দেশজুড়ে নতুন ২০,০০০ নতুন হাসপাতাল, তার জন্যে রাজ্যগুলিকে জমি দিতে ।  ডাক্তার ও স্পেশালিস্ট ডাক্তারের অভাব মেটাতে মেডিকেল কলেজগুলোকে জেলার হাসপাতালগুলির সাথে যোগ। যক্ষা নির্মূলে নয়া । 'টিবি হারেগা, দেশে জিতেগা'। প্রতিটি হাসপাতালে সস্তায় মেডিসিন শপ । 
স্বচ্ছ ভারত মিশন - স্বচ্ছ ভারত মিশনে ১২,৩০০ কোটি টাকার বরাদ্দ ।
ব্যবসা - সব উদ্যোগে নয়া দিশা দেখাচ্ছে । ভারতীয়রা এখন ব্যবসা করতে । প্রতি জেলায় এক্সপোর্ট । তৈরী করা হবে ন্যাশনাল টেক্সটাইল হাব। স্কিল ইন্ডিয়ায় ৩০০০ কোটি টাকা বরাদ্দ। দেশের মাটিতেই মোবাইল ফোন তৈরির ওপর জোর দেওয়া হচ্ছে। ছোট ও মাঝারি শিল্পে ঋণ দিতে সুযোগ। ঋণ দুইটা শর্ত শিথিল। বদল আনা হবে কোম্পানী আইনে। একটি জাতীয় রিক্রুটমেন্ট বোর্ড তৈরী করা হবে যেখানে থাকবেন অভিজ্ঞ ও বিশেষজ্ঞদের প্যানেল। 
গ্রামোন্নয়ন - ১ লক্ষ গ্রামে ফাইবার অপটিক সংযোগ। অঙ্গন ওয়ারী কর্মীদের স্মার্ট ফোন দেওয়া হয়েছে। পূৰ্ব্যবহার যোগ্য শক্তিতে বরাদ্দ ২০,০০০ কোটি টাকা। মা ও শিশুর স্বাস্থ্যের তথ্য নেওয়ার কাজ চলছে। সিডিউল কাস্টের জন্য বরাদ্দ রয়েছে ৮৫,০০০ কোটি এবং সিডিউল ট্রাইবের জন্যে বরাদ্দ রয়েছে ৫৩,৭০০ কোটি টাকা । গ্রামগুলিতে ইন্টারনেট পৌঁছাতে বরাদ্দ ৬,০০০ কোটি টাকা। প্রবীণ নাগরিকদের জন্যে বরাদ্দ ৯৫০০ কোটি টাকা।
সংস্কৃতি ও পর্যটন - নতুন পাঁচটি পর্যটন কেন্দ্র গড়ে তোলা হচ্ছে। পর্যটনের প্রসারে কর্মসংস্থান বাড়ছে। রাঁচিতে নতুন ট্রাইবাল মিউজিয়াম, লোথালে মেরিটাইম মিউজিয়াম ও আহমেদাবাদে হারাপ্পানা সভ্যতার মিউজিয়াম গড়ে তোলা হবে। স্ট্যাচু অফ ইউনিটিতে ভিড় বেড়েছে। কলকাতার জাদুঘরের উন্নয়নের জন্যে বাড়তি বরাদ্দ।  ৫টি প্রত্ন শহরকে বিশ্বমানের করে গড়ে তোলা হবে। দেশের ৪টি মিউজিয়ামকে আধুনিকীকরণ করা হবে । বড় শহরগুলিকে দূষণমুক্ত রাখতে আলাদা বরাদ্দ । পর্যটন খাতে ২৫০০ কোটি টাকা নতুন বরাদ্দ। উত্তর পুয়ের্বের জন্যে আর্থিক বরাদ্দ বৃদ্ধি। ওই রাজ্যগুলিতে অনলাইন ব্যস্থায় জোর। 
আয়কর - আয়কর হয়রানি বন্ধের জন্যে উদ্যোগ নিচ্ছে কেন্দ্র সরকার।  আয়কর আইনে নতুন সংবিধানি ও নতুন সনদ, যা পরে যুক্ত হবে আইনের সাথে। করদাতাদের ভরসা দিতে নতুন ব্যবস্থা। করদাতাদের হেনস্থা করা যাবে না। রাজকোষ ঘাটতি কমাতে উদ্যোগ। চলতি বছরে রাজকোষ ঘাটতি ৩.৮%, সেটিকে ৩.৫% আনার উদ্যোগ। 
আয়করের নতুন কাঠামো - বার্ষিক আয়  ০ - ৫ লক্ষ - কোনো আয়কর লাগবে না; ৫ লক্ষ থেকে ৭.৫ লক্ষ - ১০% (আগে ছিল ২০%); ৭.৫ - ১০ লক্ষ - ১৫% (আগে ছিল ২০%) ১০ - ১২.৫ লক্ষ - ২০% (আগে ছিল ৩০%); ১২.৫ থেকে ১৫ লক্ষ - ২৫% (আগে ছিল ৩০%); ১৫ লক্ষের ওপরে - ৩০%; ডিভিডেন্ড ডিস্ট্রিবিউশন ট্যাক্স (DDT) বিলোপ করে দেওয়া  হল।
 ব্যাঙ্ক -  ব্যাঙ্কে  ডিপোজিট করা অর্থ একেবারেই নিরাপদ। গ্রাহকদের অর্থ সুরক্ষিত রাখাই উদ্দেশ্য। ব্যাংক বন্ধ হয়ে গেলে বীমার পরিমাণ ১ লক্ষ টাকা থেকে বেড়ে ৫ লক্ষ টাকা করা হল। রাষ্ট্রায়াত্ত ব্যাঙ্কগুলিকে চাঙ্গা করতে উদ্যোগ। NBFCকে চাঙ্গা করতে উদ্যোগ। NBFC-এর ঋণের উর্দ্ধসীমা বাড়ল। ব্যংকগুলিতে ৩.৫ লক্ষ কোটি টাকার ক্যাশ ফ্লো। IDBI তে সরকারি অংশীদারিত্ব বিক্রির উদ্যোগ। LICতে সরকারি অংশীদারিত্ব ছাড়ার উদ্যোগ, সেক্ষেত্রে শেয়ার ছাড়া হবে। সস্তার আবাসনে গৃহঋণে ছাড়।"

Loading...

Amazon

https://www.amazon.in/Redmi-8A-Dual-Blue-Storage/dp/B07WPVLKPW/ref=sr_1_1?crid=23HR3ULVWSF0N&dchild=1&keywords=mobile+under+10000&qid=1597050765&sprefix=mobile%2Caps%2C895&sr=8-1

Pages