নন্দীগ্রামে বিজেপির জেলা সভাপতির কলার ধরে টান পুলিশের - আজ খবর । দেখছি যা লিখছি তাই । ডিজিটাল মিডিয়ায় অন্যতম শক্তিশালী সংবাদ মাধ্যম

Sonar Tori


নন্দীগ্রামে বিজেপির জেলা সভাপতির কলার ধরে টান পুলিশের

Share This
রাজনীতি

আজ খবর (বাংলা), মেদিনীপুর ও বাঁকুড়া  জেলা, ১৮/০১/২০২০ : পশ্চিমবঙ্গে  বিজেপির  কোনো মিছিল বা জনসভার  অনুমতি পুলিশ বা প্রশাসন সহজে দিতে চায় না, এই অভিযোগ দীর্ঘ দিন থেকেই করে আসছে রাজ্য বিজেপি। কলকাতা হোক বা জেলা, বিজেপিকে কর্মসূচি করতে দেওয়া হয় না, এমন অভিযোগ প্রায়ই শুনতে পাওয়া যায় বিজেপি নেতাদের গলায়।
আজ নন্দীগ্রামে বিজেপির একটি মিছিল ও জনসভার কর্মসূচি ছিল; যথারীতি পুলিশ সেই মিছিলের অনুমতি দেয়নি। কিন্তু ওই মিছিলে হাজির হয়েছিলেন বিজেপির বহু কর্মী সমর্থক।  শুধু তাই নয়, ওই অনুষ্ঠানের জন্যে সেখানে উপস্থিত ছিলেন  বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ এবং জেলা সভাপতি তমলুকের নবারুণ নায়েক। পুলিশের অনুমতি উপেক্ষা করেই মিছিল এগোতে থাকে নন্দীগ্রামের দিকে। কিন্তু সামান্য এগোতেই মিছিল পুলিশের বাধার মুখে পরে দাঁড়িয়ে যায়।
সিএএ-র সমর্থনে বাঁকুড়ার সাংসদ ড: সুভাষ সরকারের ডোর  টু ডোর ক্যাম্পেন 

পুলিশের ব্যারিকেড তৈরী রাখা ছিল আগে থেকেই, এমনকি নানদী পথেও যাতে কেউ এই মিছিলে যোগ দিতে না পারে তার জন্যে পুলিশি ব্যবস্থা করে রাখা হয়েছিল বলে অভিযোগ তুলেছে বিজেপির কর্মী সমর্থকরা। ঘটনাস্থলে পুলিশের বিশাল বাহিনী মিছিলের পথ রোধ করে এবং হঠাৎ করেই লাঠিচাজ করতে শুরু করে দেয়, রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষের সামনেই জেলা সভাপতি নবারুণ নায়েকের জামার কলার ধরে নিয়ে যেতে গেলে পুলিশকে বাধা দেয় বিজেপির সমর্থকেরা। বিজেপির মঞ্চ থেকে মাইকে পুলিশের উদ্দেশ্যে বার বার ঘোষণা করা হয়, এভাবে লাঠিচাজ না করার জন্যে। এই ঘটনায় গোটা অঞ্চলে তুমুল উত্তেজনার সৃষ্টি হয়; ওই সভা থেকে ফেরার সময় রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষের গাড়ি পুলিশ আটকেছিল বলে জানতে পারা গিয়েছে। বিজেপি নেতা কল্যাণ চৌবে  অবশ্য আজ সিটিজেনস এমেন্ডমেন্ট আইনের সমর্থনে ঘাটালের ক্ষীরপাইতে একটি জনসভা করেছেন।
Loading...

Amazon

https://www.amazon.in/Redmi-8A-Dual-Blue-Storage/dp/B07WPVLKPW/ref=sr_1_1?crid=23HR3ULVWSF0N&dchild=1&keywords=mobile+under+10000&qid=1597050765&sprefix=mobile%2Caps%2C895&sr=8-1

Pages