আগামীকাল ভারত বন্ধে ব্যাহত হাতে পারে কাজকর্ম - আজ খবর । দেখছি যা লিখছি তাই । ডিজিটাল মিডিয়ায় অন্যতম শক্তিশালী সংবাদ মাধ্যম

Sonar Tori


আগামীকাল ভারত বন্ধে ব্যাহত হাতে পারে কাজকর্ম

Share This
 দেশের খবর

আজ খবর (বাংলা) কলকাতা, ০৭/০১/২০২০ : বাম সংগঠনগুলির ডাকে আগামীকাল গোটা দেশেই ধর্মঘট পালিত হতে চলেছে। আগামীকালের এই বন্ধের  জেরে প্রতিদিনকার স্বাভাবিক কাজকর্ম বিঘ্নিত হতে পারে। 
আগামীকাল CITU, INTUC, AITUC, HMS, AIUTUC, TUCC, SEWA, AICCTU, LPF ও UTUC সহ বাম দলগুলির ডাকে ভারত বন্ধ হতে চলেছে। মূলতঃ বিজেপি পরিচালিত কেন্দ্র সরকারের বিভিন্ন নীতির বিরুদ্ধে এবং মোট ১২ দফা দাবি নিয়ে আগামীকাল বন্ধের ডাক দেওয়া হয়েছে। দেশ জুড়ে প্রায় ২৫ কোটি মানুষ এই ধর্মঘটে সামিল হাতে পারে বলে মনে করা হচ্ছে। 
আগামীকাল ব্যাংকিং পরিষেবা ব্যাহত হতে পারে। বিশেষ করে স্টেট্ ব্যাংক অফ ইন্ডিয়া, ব্যাংক অফ বারোদা বা ইউনাইটেড ব্যাংক অফ ইন্ডিয়ার মত রাষ্ট্রায়াত্ত ব্যাঙ্কগুলির পরিষেবা ব্যাহত হতে পারে বলে মনে করা হচ্ছে। এমনকি কিছু কিছু ব্যাংকের এটিএম পরিষেবাও বন্ধ থাকতে পারে আগামীকাল। দেশের রাষ্ট্রায়াত্ত ব্যাঙ্কগুলির সংযুক্তিকরন থেকে শুরু করে ব্যাঙ্কগুলির বেসরকারিকরণ, কেন্দ্র সরকারের এইরকম বিভিন্ন নীতির বিরুদ্ধে ব্যাংক কর্মচারী ইউনিয়নগুলো ধর্মঘটে সামিল হতে পারে।
দেশের ৬০টি ছাত্র সংগঠন স্কুল কলেজগুলিতে ভর্তির ফি বৃদ্ধির প্রতিবাদে ধর্মঘটে সামিল হবে বলে জানা  গিয়েছে, এমনকি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ক্ষত্রে পার্শ্ব শিক্ষক ও অন্যান্য কর্মচারীদের সংগঠনগুলিও আগামীকাল ধর্মঘটে সামিল হতে পারে বলে মনে করা হচ্ছে। গত রবিবার দিল্লীর জহরলাল নেহেরু বিশ্ববিদ্যালয় সহ অন্যান্য কলেজগুলিতে কেন্দ্র যে দমনমূলক নীতি গ্রহণ করেছে, তার বিরুদ্ধে আগামীকালের ধর্মঘটকে সমর্থন জানিয়েছে দেশের অনেকগুলি ছাত্র সংগঠন, শিক্ষকদের সংগঠন এমনকি ট্রেড ইউনিয়নগুলিও।
দেশের রাষ্ট্রায়াত্ত ব্যাঙ্কগুলির সংযুক্তিকরন, রেলকে প্রাইভেট সংস্থার হাতে তুলে দেওয়া এবং প্রতিরক্ষা সরঞ্জাম প্রস্তুতি বেসরকারিকরণ এসব নিয়ে কেন্দ্র সরকারের বিরুদ্ধে তীব্র অসন্তোষ ব্যক্ত করেছে দেশের ট্রেড ইউনিয়নগুলি, তাদের সমর্থন পাচ্ছে আগামীকালের এই ধর্মঘট। 
দেশের ১৭৫টি কৃষি জীবী সংগঠন বিভিন্ন দাবিদাওয়া নিয়ে আগামীকাল গ্রামীণ ভারত বন্ধের ডাক দিয়েছে, তাতে আগামীকাল সাধারণ ধর্মঘট আরও প্রাণ পেতে চলেছে। পশ্চিমবঙ্গে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ধর্মঘটকে সমর্থন না করলেও ধর্মঘটের কারন বা উদ্দেশ্যগুলিকে নীতিগতভাবে সমর্থন করছেন। যেহেতু তিনি ধর্মঘটকে সরাসরি সমর্থন করছেন না, তাই সরকারি কর্মচারীদের অবশ্যই দপ্তরে হাজির থাকতে হবে, আগামী ৯ ও ১০ তারিখেও ছুটি নেওয়া যাবে না। 

Loading...

Amazon

https://www.amazon.in/Redmi-8A-Dual-Blue-Storage/dp/B07WPVLKPW/ref=sr_1_1?crid=23HR3ULVWSF0N&dchild=1&keywords=mobile+under+10000&qid=1597050765&sprefix=mobile%2Caps%2C895&sr=8-1

Pages